ক্যামডেন-এর ঐতিহ্যের পুজো

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ২৩:৩০:০০ | শেষ আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ০৯:১৯:১১

২৭ সেপ্টেম্বর, বুধবার থেকে শুরু হল লন্ডনের ক্যামডেন-এর ঐতিহ্যপূর্ণ দুর্গা পুজো। লন্ডন দুর্গা পূজা দশেরা কমিটির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিগত ৫৪ বছর ধরে লন্ডনের বুকে এ দেবীর আরাধনা করে আসছেন বাঙালিরা। এ বছর ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১ অক্টোবর পর্যন্ত ক্যামডেন সেন্টারে নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে পালিত হবে দুর্গা বন্দনা। এ বছরের পুজোর থিম, পশ্চিমবঙ্গ সরকার অনুমোদিত ‘আমি প্রতিজ্ঞা-আমি কন্যাশ্রী’।

চণ্ডীপাঠ, বাংলা ভক্তিগীতি, ধ্রুপদী সঙ্গীতানুষ্ঠানে মুখরীত হয়ে উঠবে ক্যামডেন সেন্টার।দক্ষিণায়ন যুক্তরাজ্য শিশু বিভাগের কচিকাঁচাদের অংশগ্রহণে উপস্থাপিত হবে দেবী দুর্গার বন্দনা— দুর্গে দুর্গে দুর্গতি নাশিনী।

পুজোর বাকি দিনগুলিতে অনুষ্ঠিত হবে বিভিন্ন স্বাদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এ বারের মূল আকর্ষণ যাত্রাপালা ‘দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ’, অনুষ্ঠীত হবে ৩০ সেপ্টেম্বর।যাত্রা আমাদের দেশের এক লুপ্তপ্রায় নাট্য শৈলী। সেই নাট্য শৈলীকেই এ প্রজন্মের কাছে নতুন আঙ্গিকে তুলে ধরতে এই উদ্যোগ ক্যামডেন পূজা পরিষদ-এর। উল্লেখ্য, লন্ডনের বুকে যাত্রাপালার আসর এই প্রথম।

বাঙালির ঐতিহ্য, সংস্কৃতিকে আন্তরিকতার সঙ্গে তুলে ধরতে বিগত অর্ধ শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে নিজেদের নিয়োজিত করেছে লন্ডন দুর্গা পূজা দশেরা কমিটির একঝাঁক প্রবাসী বাঙালি।

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।