অরুণাচলের গোল্ডেন প্যাগোডা উঠে আসছে পওয়াইয়ে

সুতপা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার, মুম্বই
২১ অগস্ট, ২০১৭, ১৫:৫০:৫৪ | শেষ আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ২৩:২৯:৫২
হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত এই প্যাগোডা দেশ-বিদেশের হাজার হাজার পর্যটকের কাছে অন্যতম আকর্ষণ।
এ পুজোর পথ চলা শুরু হয়েছিল ২০০৬ সালে, দক্ষিণেশ্বর মন্দির প্রাঙ্গণে। দেখতে দেখতে এ বার দ্বাদশ বর্ষের চৌকাঠে এসে দাঁড়িয়েছে পওয়াই বেঙ্গলি ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন (পিবিডব্লিউএ) আয়োজিত ‘পওয়াই সর্বজনীন দুর্গোৎসব’। আয়োজনে, আড়ম্বরে, সাজসজ্জায়— সবেতেই আন্তরিকতার ছোঁয়া পওয়াই সর্বজনীনে।
এ বছর পওয়াই-এর পুজোপ্রাঙ্গন সেজে উঠবে অরুণাচল প্রদেশের গোল্ডেন প্যাগোডার আদলে। হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত এই প্যাগোডা দেশ-বিদেশের হাজার হাজার পর্যটকের কাছে অন্যতম আকর্ষণ। এই প্যাগোডার আনাচকানাচে তাইল্যান্ড এবং মায়ানমারের শিল্প-স্থাপত্যের ছাপ রয়েছে। সে সব কিছুই উঠে আসবে ভারতের উত্তর-পূর্ব প্রান্তে, শিল্পীর নিখুঁত হাতের ছোঁয়ায়।
পওয়াই সর্বজনীন দুর্গোৎসবের বড় একটা আকর্ষণ হল পাঁচ দিন ধরে চলা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তবে শুধু আনন্দ আর উত্সবে ডুবে থাকে না পওয়াই বেঙ্গলি ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোক্তারা। উত্সবের জন্য একত্রিত অনুদানের একটা বড় অংশ ব্যয় করা হয় বিভিন্ন সেবামূলক কাজে।
 

সর্বশেষ সংবাদ

আম বাঙালি স্নিকারকে যদি আপন করে নিতে পারতেন, তা হলে পায়ের বা কোমরের সমস্যা বোধহয় অনেকটাই কমে যেত।
ছোটবেলায় যে লেনগুলোয় দুষ্টুমি করতাম, এখন বান্ধবীর কাছে সে সব নিয়ে গল্প করা যায়।
পুজোয় নতুন জামার সঙ্গে নতুন জুতো কিন্তু মাস্ট। আর জুতো তো হাল ফ্যাশনের হতেই হবে।
প্রতিমার সিংহ ঘোটক আকৃতির, তিন চালি বিশিষ্ট চালচিত্রকে বলা হয় মঠচৌড়ি
কল্লোলের দুর্গোৎসব ৫৩ বছরে পা দিল
কাফে কলম্বিয়া-র নানান স্পেশাল মেনু সম্পর্কে জানালেন জেনারেল ম্যানেজার অরিন্দম বন্দ্যোপাধ্যায়।
সকালে ঢাক বাজিয়ে জুরিখ লেকে কলাবৌয়ের স্নান, মণ্ডপে আড্ডা, ভূরিভোজ, সন্ধেয় ধুনুচি নাচ আর অনুষ্ঠান
বাঙালি মানেই যে-কোনও উৎসবে ভুরিভোজ মাস্ট। কলেজের রিইউনিয়ন থেকে ফ্যামিলি গেটটুগেদার, বিয়েবাড়ি থেকে শুরু করে পুজোপার্বণ।