লক্ষ্মীপুজোয় লক্ষ্মীমন্ত সাজের সাত-সতেরো

অমৃত হালদার
০৪ অক্টোবর, ২০১৭, ১৩:৩১:২৮ | শেষ আপডেট: ০৪ অক্টোবর, ২০১৭, ১৭:২০:৪৭
উমা কৈলাশে পাড়ি দিয়েছেন কয়েক দিন হল। মনের কোণে বিষাদ। বিজয়ার মিষ্টিমুখ, প্রণাম আর কোলাকুলিও শেষ। উৎসবের মেজাজ খানিকটা যখন রং হারাতে বসেছে, ঠিক তখনই পঞ্জিকা জানান দিচ্ছে চলে এসেছে কোজাগরী লক্ষ্মীপুজো।
লক্ষ্মীপুজোর সঙ্গে ঐতিহ্য, গৃহের জন্য শুভ কামনা জড়িয়ে।

শুরু হয়ে গিয়েছেপুজোর তোড়জো়ড়। এ বারের পুজোতে কেমন আলপনা হবে মেঝে জুড়ে, কিংবা কোন ভোগটা নিবেদন করবেন—এ সব নিয়ে ভাবনাও প্রায় শেষের দিকে। কিন্তু আপনি কী ভাবে সাজবেন তা নিয়ে এখনও ভেবেই উঠতে পারেননি। যতই বাড়িতে পুজো হোক না কেন, অতিথিরা আসবেন, একটু সেজে-গুজে থাকাই ভাল। কী ভাবে সাজবেন তা জানাচ্ছেন এক্সপার্টরা। আসুন জেনে নেওয়া যাক—

Fashion Tips For Laxmi Puja- Ananda Utsav 2017

মেকআপের কারিকুরি

ঘরোয়া পুজো তবু একটু পরিপাটি হয়ে সেজে থাকা ভাল। লোকজনের সামনে এক্কেবারে না সেজে গেলে হয় নাকি বলুন তো! পুজোর কাজ তো করবেনই। তার সঙ্গে নিজেকে প্রেজেন্টেবল করে রাখাটাও জরুরি। মেকআপের সাত-সতেরো সম্পর্কে জানাচ্ছেন মেকআপ আর্টিস্ট শুভম চক্রবর্তী।

আপনি বাড়িতেই থাকবেন তাই চড়া মেকআপের ধার ঘেঁষবেন না। বরং ভীষণ হালকা মেকআপ লুকস রাখুন। যাতে  সারাদিন উপোসের পরেও আপনাকে সতেজ দেখাবে।

স্কিন টোন বুঝে নিয়ে একটা বেস মেকআপ করুন। স্টুডিও ফিক্স কমপ্যাক্ট, কাজল আর ম্যাট লাইট শেডের লিপস্টিকই যথেষ্ট।

আই মেকআপের ক্ষেত্রে কাজলট আপার লিডে ব্লেন্ড করে হালকা স্মোকি এফেক্ট দিতে পারেন। সঙ্গে একটা ন্যুড লিপস্টিক। ব্যস আর কী চাই!

Fashion Tips For Laxmi Puja- Ananda Utsav 2017

পোশাকের পয়জার

লক্ষ্মীপুজোর সঙ্গে ঐতিহ্য, গৃহের জন্য শুভ কামনা জড়িয়ে। তাই পোশাকটাও হোক ট্রাডিশন মেনে। এ দিনটিতে কেমন ধরনের পোশাক পরবেন জানাচ্ছেন ডিজাইনার অভিষেক নাইয়া।

এই বিশেষ দিনটি বাংলার মানুষের কাছে খুবই স্পেশ্যাল। তাই একটু সাজলে মন্দ হয় না। দিনটিতে বাড়িতেই থাকা হয় বলে সে ভাবে পোশাকের দিকে নজর দেওয়াই হয় না। আমার মতে-ঘরের পুজো তো অনেক বেশি আপনার। তাই এ দিনটিতে একটু নিজের মতো করে সেজে উঠুন না। তবে হ্যাঁ, আরামের দিকটা অবশ্যই মাথায় রাখবেন। বাংলার নিজস্ব টাঙ্গাইলে সেজে উঠলে ব্যাপারটা কিন্তু এক্কেবারে জমে যাবে। অফ হোয়াইট রঙের জমি আর পাড়ে লাল, মেরুন কিংবা অন্য কোনও রঙের সুতোর হালকা কাজ করা একটা শাড়ি পরতে পারেন। সাদামাঠার উপর একটা অন্য রকম লুক আসবে। আপনি শাড়িতে এক্কেবারে স্বচ্ছন্দ নন? সে ক্ষেত্রে আপনি টাঙ্গাইলে তৈরি লং ড্রেস পরতেই পারেন। অথবা নি লেংথ ড্রেস পরুন। দিব্যি লাগবে কিন্তু। ওই সর্বক্ষণ শাড়ির মনোটনি থেকে খানিক বেরিয়ে আসুন।

Fashion Tips For Laxmi Puja- Ananda Utsav 2017

স্টাইলিংয়ের টুকিটাকি

মেকআপ আর পোশাকের দিকটা তো গেল। কী ভাবে নিজেকে আরেকটু সুন্দর করে তোলা যাবে সেটাও তো জানা চাই। সেটার জানাতে পারেন একমাত্র স্টাইলিস্টই। স্টাইলিস্ট আকাশ বেরা সে সবের খোঁজ দিলেন।

সবার প্রথমে বলব ট্রাডিশনাল ভাবেই সাজুন। সে ক্ষেত্রে বাংলার কোনও মেটেরিয়ালে তৈরি পোশাকই মাস্ট। চুল হালকা পাফ করে নিয়ে পিছনে বান করে নিন। সঙ্গে ফুলের মালা। ব্যাপারটা জাস্ট জমে যাবে।

 আমাদের পুজোপাঠের সময় মহিলাদের চুল খোলা রাখাটা কিন্তু একটু অন্য চোখেই দেখা হয়। তার কারণ কিছুই নয়, খোলা চুলে অনেকটা অস্বস্তি দেখা দেয়। যদি নিতান্তই আপনি চুলটা খোলা রাখতে চান সে ক্ষেত্রে পুজোর সময় একটা ক্লিপ দিয়ে সুন্দর করে বান করে রাখুন। পুজো শেষে চুলটা খোলা রাখুন না। দিব্যি দেখাবে। চুলটা কার্লও করিয়ে নিতে পারেন।

আর গয়নার ব্যাপারে বলব, একটু বেশি বয়সীরা সোনার দিকে চোখ বন্ধ করে ঝুঁকতে পারেন। লক্ষ্মীপুজোর দিন সোনার কোনও বিকল্প হয় না। কানে একটা দুল বা পাশা, গলাবন্ধ হার। আর হাতে চুড়ি কিন্তু মাস্ট। টিকলি পরার তো সে ভাবে সুযোগ হয়ই না। ধনলক্ষ্মীর পুজোর দিনটিতে তার সদ্ব্যবহার করে ফেলুন।

আপনি যদি নেহাত টিপিক্যাল সাজতে না চান, তবে অক্সিডাইজড সেমি জাঙ্ক জুয়েলারি ট্রাই করতে পারেন।

মডেল: তৃণা, মিষ্টি, হিয়া, লিজা।

মেকআপ: শুভম চক্রবর্তী।

পোশাক: অভিষেক নাইয়া, দীপ সিংহ, সহেলী পুততুণ্ড মুখোপাধ্যায়।

ছবি: রাহুল হালদার, অমিত চক্রবর্তী

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।