নবমীর ভোগের নিরামিষ মাংস

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১২:২৯:৪৫ | শেষ আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ০৪:১২:২৬
দুর্গাপুজোয় সন্ধিপুজোর সময় বলি দিয়ে নবমীতে পাঁঠার মাংস খাওয়ার রেওয়াজ বহু পুরনো। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বলি দেওয়ার নিয়ম উঠে গেলেও নবমীর ভোগে পাঁঠার মাংস খাওয়ার রেওয়াজ কিন্তু চলছেই। সেই পাঁঠার মাংস হয় পেঁয়াজ, রসুন বর্জিত। শিখে নিন সেই নিরামিষ পাঁঠার মাংসের রেসিপি।
ছবি ও রেসিপি সৌজন্যে: পৌলমী মল্লিক কুণ্ডু।

কী কী লাগবে

পাঁঠার মাংস: ৭০০ গ্রাম

আলু: ২টো বড় (খোসা ছাড়িয়ে অর্ধেক করে কাটা)

আদা বাটা: ২ টেবল চামচ

গুঁড়ো হলুদ: ১ চা চামচ

লঙ্কা গুঁড়ো: ১ টেবল চামচ

গোটা জিরে: ১ চা চামচ

গোটা ধনে: ১ চা চামচ

দারচিনি: ১টা স্টিক (মাঝারি)

ছোট এলাচ: ৩টে

লবঙ্গ: ৩টে

কাঁচা লঙ্কা: ৪-৬টা (চেরা)

সর্ষের তেল: ৩ টেবল চামচ

নুন: স্বাদ মতো

রান্নার আগে

গোটা জিরে ও গোটা ধনে শুকনো খোলায় সামন্য নেড়ে নিয়ে গুঁড়ো করে রাখুন।

কী ভাবে বানাবেন

Recipe For Nabami Special Mutton Curry- Ananda Utsav 2017

পাঁঠার মাংস ২ টেবল চামচ সর্ষের তেল, গুঁড়ো হলুদ, লঙ্কা গুঁড়ো, আদা বাটা ও নুন দিয়ে ভাল করে ম্যারিনেট করে রাখুন ৩০ মিনিট।

Recipe For Nabami Special Mutton Curry- Ananda Utsav 2017

প্রেশার কুকারে তেল গরম করে দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ ফোড়ন দিয়ে সুন্দর গন্ধ বেরোলে ম্যারিনেট করা মাংস দিন।

Recipe For Nabami Special Mutton Curry- Ananda Utsav 2017

চাপা দিয়ে মাংস যতক্ষণ না কালচে হয়ে আসছে ততক্ষণ রান্না করুন ও কাঁচা লঙ্কা চেরা দিন। মাংস প্রচুর জল ছাড়বে।

Recipe For Nabami Special Mutton Curry- Ananda Utsav 2017

এ বার গুঁড়ো মশলা ও ৪ কাপ জল দিয়ে প্রেশার কুকার বন্ধ করে ৬-৭টা হুইসল পর্যন্ত সিদ্ধ হতে দিন। এতে মাংস পুরোপুরি সিদ্ধ হয়ে যাবে। ইচ্ছা হলে মাং‌সে আলু দিতে পারেন। 

Recipe For Nabami Special Mutton Curry- Ananda Utsav 2017

গরম ধোঁয়া ওঠা ঝুরঝুরে বাসমতী চালের ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন নিরামিষ মাংস। 

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।