নেক্স-জেন ফিউশন ফুডের নয়া ঠিকানা রোজারিওজ

সুমা বন্দ্যোপাধ্যায়
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১৬:৪৬:৫৬ | শেষ আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১১:২৮:৪৭
কাহানির বিদ্যা বাগচি যখন কলকাতায় এসেছিলেন, তখন রোজারিওজ ছিল অন্য নামে, অন্য সাজে। গেস্ট হাউসের স্পেশাল গেস্ট মিস করে গেলেও, এ কালে জেন ওয়াই থেকে তাঁদের পূর্ববর্তী দুই প্রজন্মের মন-পসন্দ ইটিং আউটের ঠিকানা নতুন রূপে সেজে ওঠা এই অসাধারণ ফিউশন রেস্তোরাঁটি। হাসি মুখে নতুন নামের ও দুরন্ত স্বাদের খাবারের আবদার শুনে নিয়ে নিজের মনের মাধুরী মিশিয়ে ঝটপট নিত্য নতুন পদ বানিয়ে ফেলেন শেফ ক্রিস্টিনা রোজারিও।
ছবি: অনির্বাণ সাহা

দেশপ্রিয় পার্কের কাছে কহানির বিখ্যাত গেস্ট হাউসের পাশেই রোজারিওজ। প্রজাপতির মতো এ টেবিল ও টেবিল দৌড়ে বেড়ানো ছোট্ট মেয়েটিই যে নয়া ফিউশন ফুড রেস্তোরাঁর মালিক কাম রন্ধন শিল্পী তা চট করে বোঝা মুশকিল। কথা বললেই বোঝা যায় ওর ধ্যান জ্ঞান, স্বপ্ন সবই বিভিন্ন রেসিপিকে ঘিরে। শুধু স্বাদু হলেই চলবে না, ক্রিস্টিনা জোর দেন খাবারের পুষ্টিগুনের উপরেও। তাই ওর রেসিপিতে তেল থাকে যৎসামান্য। বেশির ভাগ ডিশই হয় স্যতে অথবা সামান্য তেল লাগিয়ে গ্রিল করে নেওয়া। সঙ্গে থাকে বিভিন্ন ভেজিটেবলস। মেক্সিকান, ইটালিয়ান বা কন্টিনেন্টাল সব কিছুতেই ভারতীয় পরশ। আর এই কারণেই ক্রিস্টিনার রেস্তোরাঁ সব সময় হাউজফুল। কয়েকটি রেসিপি শেয়ার করলেন পাঠকদের জন্যে।

পেসকাদো সিলান্ত্রো উইথ মেক্সিকান রাইস  

Rozarios Shares Their Durga Puja Special Menu- Ananda Utsav 2017

আদতে ভিয়েতনামের বাসা মাছের সঙ্গে ধনেপাতার সসের এক অসাধারণ কম্বিনেশন। উপকরণে বাহুল্য নেই, কিন্তু এমন স্বাদ আনতে পারে যে শেফ, তাকে শিল্পী ছাড়া আর কী-ই বা বলা যায়!  নামের মতোই দুর্দান্ত সুন্দর স্বাদ এই চিংড়ি আর বাসা মাছের পদটির। চিংড়ি ও বাসার সঙ্গে পাওয়া যাবে চিজ ও সিলান্ত্রো অর্থাৎ ধনেপাতার সসের সুস্বাদু ও মেক্সিকান সসের সুবাস। আদতে এটি একটি মেক্সিকান সিফুড ডিশ। আছে শেফের হাতের জাদু পরশ, তাই রূপে গুনে টেক্কা দিতে পারে না কেউই। মুখে দেওয়ার পরে মনে হবে এত দিন কেন খাইনি!

উপকরণ  

বাসা ফিলে: বড় ২টি

বড় চিংড়ি: ৪টি

বাড়িতে তৈরি মেক্সিকান সস: ৪ বড় চামচ

গ্রেট করা চিজ: ৪ চামচ

নুন, মরিচ: স্বাদ অনুযায়ী

মাখন: ২ চামচ

মিহি করে কুচনো রসুন: ২ চামচ

অরিগানো: ১ চামচ

কাঁচালঙ্কা: অল্প

প্রণালী: ফ্রাইং প্যানে মাখন দিয়ে রসুন নেড়ে চেড়ে নিন। বাসা ও চিংড়ি দিয়ে এ পিঠ ও পিঠ ভেজে নিয়ে সিলান্ত্রো সস দিয়ে ফুটতে দিন। অল্প কাঁচালঙ্কা কুচি মিশিয়ে নিন। এ পিঠ ও পিঠ উলটে পাল্টে সোনালি রঙ ধরলে মেক্সিকান সস দিয়ে ফুটিয়ে নিয়ে গ্রেট করা চিজ ও অরিগ্যানো দিয়ে পরিবেশন করুন। মেক্সিকান রাইস দিয়ে লাঞ্চ বা ডিনার জমে যাবে।

বালিনিজ চিকেন স্যতে উইথ বেসিল রাইস

Rozarios Shares Their Durga Puja Special Menu- Ananda Utsav 2017

প্রতিটি কামড়েই জিভ আর মন দুই-ই তাজা হয়ে ওঠে। প্রতিটি কামড়েই লেমন গ্রাসের চনমনে তাজা সুগন্ধ। বেসিলের সুগন্ধে ভরা বেসিল রাইস আর চিকেন স্যঁতে অনায়াসে চেখে দেখতে পারেন যারা ঘোরতর ডায়েটে আছেন তাঁরাও। অত্যন্ত সুস্বাদু এই চিকেন স্যঁতেতে তেলের ছিটেফোঁটাও নেই। অথচ দুর্দান্ত স্বাদে ভরা। বিনা তেলেও যে এই অসাধারণ রান্না হতে পারে তা না চেখে দেখলে অবিশ্বাস্য মনে হবে।

উপকরণ

চিকেন কিমা: ২৫০ গ্রাম

লেমন গ্রাস ও বেসিল (মিহি করে কুচি করা): ২ চামচ

নুন: স্বাদ মতো

লেবুর রস ও মরিচ গুঁড়ো: ২ চামচ করে প্রতিটি

আদা ও রসুন কুচি: ২ চামচ করে

লেমন গ্রাসের শক্ত ডাঁটি: ৪ টি

প্রণালী: চিকেন কিমাতে নুন, মরিচ, লেবুর রস দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখুন ১০ মিনিট। এ বার বাকি উপকরণ মিশিয়ে আরও ১০ মিনিট ম্যারিনেট করুন। লেমন গ্রাস স্টিকে গেঁথে গ্রিল করে নিন। গ্রিলার না থাকলে নন স্টিক ফ্রাইং প্যানে ঢিমে আঁচে এ পিঠ ও পিঠ করে সেঁকে নিয়ে বেসিল রাইস ও স্যালাড সহযোগে পরিবেশন করুন।

বাটারি কটেজ চিজ পসন্দা

Rozarios Shares Their Durga Puja Special Menu- Ananda Utsav 2017

যারা নিরামিষের নাম শুনলে নাক সিঁটকোন তারাও চেটেপুটে খাবেন পনীরের এই অতি সুস্বাদু পদটি। পনিরের স্যান্ডউইচে কামড় দিলেই অসাধারণ আস্বাদের আরামে মন প্রাণ জুড়িয়ে যাবে। কাজু আর ক্ষীরের সঙ্গে ঝাল ঝাল মরিচের আস্বাদ, সঙ্গে তুলতুলে পনীর, আহা খাওয়ার আরাম কাকে বলে। এই পদ মিস করলে আপনারই লস। নান রুটি সহযোগে ডিনার জম্পেশ জমে যাবে।

উপকরণ

পনিরের বড় স্লাইস: ৪টে

ক্ষীর, গ্রেট করা পনির ও কাজু আধ কাপ

আলু সেদ্ধ: ২ বড় চামচ

পেঁয়াজ ও কাচালঙ্কা কুচি: আধ কাপ

ভাজা পেঁয়াজ: আধ কাপ

নুন ও মরিচ গুঁড়ো: স্বাদ মতো

কাজু বাটা: ২ চামচ

মাখন: ২ বড় চামচ

ক্রিম: ২ চামচ

প্রণালী: স্যান্ডউইচের পাউরুটির মতো বড় ও তিন কোণা করে ক্রিম পনিরের স্লাইস করে তাতে নুন ও সামান্য হলুদ দিয়ে ম্যারিনেট করুন। মিনিট দশেক রেখে এ পিঠ ও পিঠ করে গ্রিল করে নিন। এ বার ভিতরের স্টাফিং তৈরি করতে হবে। সিদ্ধ আলু, গ্রেট করা পনির, কাজু, ক্ষীর, কুচনো ক্যাপসিকাম, জুলিয়েন করা আদা ও গ্রেট করা খোয়া ক্ষীর এক সঙ্গে মিশিয়ে প্যানে মাখন দিয়ে পেঁয়াজ কুচির সঙ্গে ভেজে নিন। নুন ও গোলমরিচ দিয়ে নামিয়ে রাখুন। এ বার ফ্রাইং প্যানে মাখন দিয়ে পেঁয়াজ বাদামি করে ভেজে নিতে হবে। এর মধ্যে কাজু বাটা দিয়ে কষে মাখা মাখা হলে ক্রিম সহযোগে নামিয়ে নিন। এর পর স্টাফিং গ্রিল করা পনিরের টুকরোর মধ্যে পুরে স্যান্ডউইচের মতো করে নিয়ে হাল্কা করে ভেজে উপরে লালচে গ্রেভি ঢেলে ভাজা পেঁয়াজ দিয়ে নান বা ফ্রায়েড রাইসের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।