পুজোয় ঘোরার জরুরি কিছু সেফটি টিপ্‌স

মধুবন্তী রক্ষিত
০৬ অক্টোবর, ২০১৬, ১৬:২৬:৪৯ | শেষ আপডেট: ২৩ অগস্ট, ২০১৭, ১১:১৮:২৬
safety tips

পুজোয় সেজেগুজে বেড়াতে বেরোতে কার না ভাল লাগে? কিন্তু পুজোর সময় ভাল লাগার সঙ্গেই ভাল থাকাটাও জরুরি। পুজোর আনন্দে মাতোয়ারা হয়েও নিজের নিরাপত্তার দায়িত্ব কিন্তু নিতে হবে নিজেকেই।

প্যান্ডেলে ঘোরার ভিড়েই খেয়াল রাখতে হবে নিজের টাকাপয়সা, মোবাইল ফোনের। ছেলেরা বিশেষ করে প্যান্ডেলে ঢোকার লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার সময় খেয়াল রাখুন নিজের পার্স বা ওয়ালেটের দিকে। প্যান্টের ব্যাক পকেট থেকে ওয়ালেট তুলে নেওয়া খুব সহজ কাজ। মেয়েরা খেয়াল রাখুন ব্যাগের চেন বন্ধ আছে কিনা।

পুজোর সময় সকলের কাছেই টাকা পয়সা বেশি থাকে। তাই সব টাকা এক জায়গায় না রেখে ব্যাগের বিভিন্ন জায়গায় ভাগ করে রাখুন। পার্সে রাখুন ন্যূনতম প্রয়োজনীয় টাকা। আপনার কাছে কত টাকা আছে সেটাও যেন বার বার বন্ধুদের কাছে ঘোষণা করবেন না। এতে পকেটমারদের দৃষ্টি কিন্তু আপনার দিকেই যাবে।

Follow These Safety Tips This Durga Puja-Ananda Utsav

সকলের কাছেই এখন দামী মোবাইল ফোন। পুজোয় বন্ধুদের সঙ্গে সেলফি তোলা, অভিনব প্যান্ডেলের ছবি তোলার জন্য বার বারই ফোন ব্যাগ থেকে, পকটে থেকে বের করতে হবে। তাই ভিড়ের মাঝে মোবাইল খোয়া যাওয়ার সম্ভাবনাও প্রবল। তাই ভাল হয় যদি মোবাইল হাতেই রাখতে পারেন। যদি ব্যাগে রাখেন তাহলে সময় সময় খেয়াল করে দেখে নিন মোবাইল যথাস্থানে রয়েছে কিনা। রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে বেরনোর সময় মনে করে দেখে নিন মোবাইল সঙ্গে রয়েছে কিনা।

ভিড় প্যান্ডেল বা প্যান্ডেল চত্বরে ঢুকে প্রথমেই দেখে নিন নিকটবর্তী প্রস্থানের রাস্তা। প্যান্ডেলে দেখার জন্য এখন শহরের অনেক জায়গাতেই বাঁশ দিয়ে রাস্তা তৈরি করা আছে। ভাল করে বিবেচনা করে তবেই লাইনে দাঁড়ান। মাঝপথে হঠাত্ বেরিয়ে নাও আসতে পারেন।

বাড়ি থেকে বেরনোর সময় অবশ্যই মোবাইল ফুল চার্জ দিয়ে নিন। পুজোয় যোগাযোগ যেন ছিন্ন না হয়। যদি সারা দিন বা সারা রাতের জন্য বেরোন তাহলে সঙ্গে রাখুন পোর্টেবল পাওয়ার ব্যাঙ্ক। ফোনের চার্জ কম থাকলে আপনাকে উদ্বিগ্ন হতে হবে না। আধ ঘণ্টা পাওয়ার ব্যাঙ্কে চার্জ দিয়ে নিলেই কেল্লাফতে।

Follow These Safety Tips This Durga Puja-Ananda Utsav

যাদের সঙ্গে ঘুরতে যাবেন তাদের সকলের ফোন নম্বর অবশ্যই বাড়ির লোকের কাছে দিয়ে যান। কোনও দরকারে আপনাকে ফোনে না পেলেও যাতে তারা আপনার খবর নিতে পারেন। নিজের কাছেও রাখুন সকলের নম্বর। যাদের সঙ্গে বেরোচ্ছেন তাদের সকলকে চেনেন কিনা তা যাচাই করে নিন। এর বন্ধু, তার বন্ধু, অমুকের ভাই-এর থেকে দূরত্ব রাখাই ভাল। দল থেকে আলাদা হয়ে কোনও দোকান বা ওয়াশরুম যেতে হলে একা না গিয়ে সঙ্গে কাউকে নিয়ে যাওয়াই ভাল।

সারা দিন কোথায় কোথায় যাবেন তার একটা মোটামুটি আইডিয়া বাড়ির লোকের কাছে দিয়ে রাখুন। যদি ভাড়া গাড়ি করে বেরোন তাহলে গাড়ির নম্বর, ড্রাইভারের নাম, ফোন নম্বর দিয়ে রাখুন বাড়ির লোকের কাছে। অন্য দিকে আবার দলের মধ্যে জোরে জোরে নিজেদের দিনের প্ল্যান আলোচনা না করাই ভাল।

পুজোর হুল্লোড়ে মাতলেও আশেপাশে চোখ রাখুন। কাউকে দেখে যদি মনে করে বার বার আপনার দিকে দেখছেন বা আচরণ সন্দেহজনক, তাহলে বন্ধুদের জানান। দরকার মনে করলে পুজো কমিটিকে জানাতে পারেন। অচেনা লোকের সঙ্গে কথা বলবেন না বা নিজের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য দেবেন না।

Follow These Safety Tips This Durga Puja-Ananda Utsav

সাবধান থাকতে হবে নিজের শরীর সম্পর্কেও। সঙ্গে রাখুন ছোট জলের বোতল এবং দরকারি ওষুধপত্র। যেমন বমি, মাথা ব্যথার ওষুধ, ব্যান্ডেড। আপনি যদি কোনও কারণে চিকিত্সাধীন থাকেন তাহলে অবশ্যই নিজের ওষুধ সঙ্গে নিয়ে বেরোন এবং সময় মতন মনে করে সেটা খান।

পুজোর আনন্দকে আরও একটু বাড়িয়ে দিতে এই কয়েকটা জিনিস মাথায় রাখুন। কোনও মন খারাপ যেন আপনার এই পুজোর স্মৃতিকে ম্লান না করে তোলে।

 

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।