দিওয়ালিতে ঘর সাজিয়ে তুলুন একেবারে অন্য ভাবে

মধুবন্তী রক্ষিত
diwali decor

আর দু’দিন। আপনার বাড়ি নিশ্চয়ই এত দিনে সাজিয়ে ফেলেছেন মনের মতো করে। নাকি নানা কাজের ব্যস্ততায় এখনও সাজিয়ে তুলতে পারেননি? দিওয়ালির সময় ঘর পরিষ্কার করে সাজিয়ে রাখাকে অনেকেই শুভ মনে করেন। পুরনোকে পিছনে ফেলে নতুনের আগমন। আপনার গৃহসজ্জায় আনুন সেই নতুনের ছোঁয়া।

হাল ফ্যাশনের গৃহসজ্জার কালার স্কিম হল জুয়েল টোনস-মানে ঘরের সাজে, আসবাবে থাক মণি মাণিক্যের রঙের ছোঁয়া। উজ্জ্বল লাল, নীল, সবুজ, বেগুনি-মনে করুন চুনি, পান্না, নীলা ইত্যাদি। রাখুন জরদৌসি, চুমকি, কাচ, সিকুইনের প্রাধান্য। মনে রাখতে হবে দিওয়ালি আলোর উত্সব। তাই বাড়ির সাজে রাখতে হবে মানানসই ঔজ্জ্বল্য।

দিওয়ালির দিন বাড়িতে লোকজন আসবেই। তাই ঘর রাখতে হবে পরিপাটি। যদি পুজোর সময় সোফা সেটের কভার না বদলে থাকেন তাহলে এখন বদলে ফেলুন। রোজকার সুতির কুশন কভার ছেড়ে সিল্ক অথবা সেই ধরনের ফেব্রিকের কভার চড়ান। কুশন কভারে থাক জড়ির এমব্রয়ডারি, কাচের কাজ অথবা উজ্জ্বল প্যাচওয়ার্ক। এক নিমেষেই ঘরের রূপ বদলে যাবে। সোফার ওপর রেখে দিন জমকালো কাজ করে ওড়না-বাঁধনি বা লেহরিয়া ধরনের ওড়না যাতে কাচ বসানো থাকে সেগুলো এই কাজের জন্য আদর্শ।

Home Decor Ideas For Diwali-Ananda Utsav

সেন্টার টেবলে সুন্দর কাচের পাত্রে রাখুন নানা রকমের ড্রাই ফ্রুটস অথবা পটপৌরি। যদি আপনার বাড়িতে বাগান থাকে তাহলে টাটকা ফুলও তুলে রাখতে পারেন ঘরের সেন্টার টেবলে। বাজারে আজকাল সর্বত্রই পাওয়া যাচ্ছে নানা ধরনের ফ্যান্সি প্রদীপ। কোথাও মাটির প্রদীপের ওপর রং করা, কোথাও আবার সাবেকি স্টাইল। নিজের রুচি মতো কিনে বসার ঘরে সাজিয়ে রাখতে পারেন।

এ ছাড়াও পাওয়া যায় ইলেকট্রিক অথবা ব্যাটারি চালিত প্রদীপ আর মোমবাতি। ঘরের শো কেস বা দেওয়ালের র‌্যাকে রেখে জ্বালিয়ে দিন। কোনও ঝঞ্ঝাটও নেই, আবার ঘর দেখতেও লাগবে অপূর্ব। যদি চান তাহলে কোনও পেন্টিং বা ছবিকে হাইলাইট করে লাগিয়ে দিতে পারেন টুনি লাইটের ছড়া। অথবা দেওয়ালের র‌্যাকের চারপাশে।

ঘরের কোণা বাদ যাবে কেন? রাখতে পারেন আকর্ষণীয় কোনও কৃত্রিম ফুলের সজ্জা বা আসল পাতা বাহার গাছ। বাড়িতে স্ট্যান্ডিং ল্যাম্পশেড থাকলে তাও সাজিয়ে রাখতে পারেন ঘরের কোণায়। একটু বেশি জায়গা থাকলে পিতল বা কাঁসার বড় বাসনে জল ভরে তাতে ভাসিয়ে দিতে পারেন কৃত্রিম ফুল বা ফ্লোটিং ক্যান্ডল অথবা দুটোই এক সঙ্গে।

Home Decor Ideas For Diwali-Ananda Utsav

খাওয়ার টেবলে রাখতে পারেন ফুলের অ্যারেঞ্জমেন্ট। এক রকমের কাচের পাত্রে রেখে দিন নিমকি, চানাচুর, গাঠিয়া প্রভৃতি মুখরোচক। শুকনো মিষ্টি যেমন বরফি, লাড্ডুও রাখতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন যেন পিঁপড়ে না ধরে যায়। রাখুন সুন্দর গ্লাসের সেট। চাইলে নানা রঙের কাচের গ্লাসও কিনে রাখতে পারেন।

শোওয়ার ঘরের বিছানায় পাতুন নতুন চাদর। জয়পুরি ব্লক প্রিন্টের উজ্জ্বল বেড কভার বা আরও জমকালো কিছু। যেমন আপনার পছন্দ তেমন ভাবে সাজিয়ে তুলুন। বিছানাতেও রাখতে পারেন উজ্জ্বল কভার চড়ানো কুশন। বেড সাইড টেবলে রাখুন ফ্যান্সি মোমবাতি। পুরনো পুতির হার রেখে দিন কাচের বাটিতে, সঙ্গে রাখতে পারেন কিছু কৃত্রিম রত্ন। আপনার ঘরে আসবে অভিনবত্বের ছোঁয়া।

দিওয়ালিতে ঘর সাজানো হবে আর সেখানে আলো থাকবে না তা কখনও হয়? বাজারে নানা ধরনের টুনি লাইট পাওয়া যাচ্ছে-আছে অভিনব সব ডিজাইন। নিজের পছন্দ আর বাজেট অনুযায়ী কিনে নিন আর বাড়ির বারান্দায় বা বাড়ির ভিতরেই লাগিয়ে ফেলুন। অথবা যদি আগের বছরেরগুলো থেকে থাকে তাহলে সেগুলোও ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের পর্দার মাঝে ঝুলিয়ে দিতে পারেন লাইটের ছড়া।

 

সর্বশেষ সংবাদ

ভাইকে এ বছর ভাইফোঁটাতে কী দেবেন ভেবেছেন? চলুন দেখি কিছু উপহারের নমুনা।
থাকছে অসংখ্য সিসি ক্যামেরার নজরদারি।
আজ কালীপুজো। দীপাবলির আলোয় সেজেছে চারিদিক।
শুধু কালীঘাট কিংবা দক্ষিণেশ্বর নয়। এ শহরে ছড়িয়ে রয়েছে ছোট বড় অসংখ্য কালীমন্দির।
বাজি পোড়ানোর সময় কিছু সাবধানতা নিতে বললেন চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা নন্দিনী রায় ও চেষ্ট ফিজিশিয়ান ডা সুস্মিতা রায়চৌধুরি।
মোমপ্রদীপ ও ফ্যান্সি প্রদীপের চাহিদা
শিল্পী মগ্ন হয়ে দেখতে থাকেন নিজের সৃষ্টি
মায়ের হাতের বুঁদিয়া-ভুজিয়া, বন্ধু হাসিনা-কাকলিদের সঙ্গে হুটোপাটির স্মৃতিতে বুঁদ হন কলকাতার বড়বাড়ির বধূ।