সস্তায় ভোজবাজি

রেশমী প্রামাণিক
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১৩:৪২:৩২ | শেষ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১১:১৩:২৯
বাঙালি মানেই যে-কোনও উৎসবে ভুরিভোজ মাস্ট। কলেজের রিইউনিয়ন থেকে ফ্যামিলি গেটটুগেদার, বিয়েবাড়ি থেকে শুরু করে পুজোপার্বণ। কব্জি ডুবিয়ে খাসির মাংস আর খান কুড়ি রসগোল্লা খাওয়াটা বাঙালি মিথের পর্যায় নিয়ে গিয়েছে। আসলে এই মনপ্রাণ ভরে খাওয়া একটা আর্ট। তাই পুজোর ক’দিন প্যান্ডেল হপিং হবে আর খানাপিনা বাদ, এ তো হতেই পারে না।
ছবি: অনির্বাণ সাহা

নতুন জামা নতুন জুতোয় পায়ে ফোস্কা নিয়ে বাস মেট্রোয় লম্ফঝম্প করে দক্ষিণ থেকে উত্তর আর উত্তর থেকে দক্ষিণে সদলবলে টইটই করে ঘুরে না বেড়ালে পুজোটা ঠিক জমে না। শুধু তো ঘুরলেই চলবে না, কিছুটা সময় বরাদ্দ থাক পেটপুজোর জন্য। ফুচকা, রোল, চাউমিন, মোমো, কাবাব, পকোড়া, কাটলেট, আইসক্রিম থেকে শুরু করে ধোঁয়া ওঠা ভাত, মুড়িঘণ্ট, সবই থাকে মেনুতে।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

লাকি ক্যাফেটেরিয়া

পুজো পরিক্রমা যদি শুরু হয় নর্থ থেকে তা হলে সিমলা ব্যায়াম সমিতি, চালতাবাগানের প্রতিমা দর্শনের পর চলে আসুন মানিকতলা মোড়ের হকার্স কর্নারের ‘লাকি ক্যাফেটেরিয়া’-তে। পুজোর দিনগুলোতে দোকান খোলা থাকবে ভোর ৫টা থেকে রাত ৩টে অবধি। প্রাতরাশের টোস্ট, অমলেট, চিকেন স্টু থেকে শুরু করে চিলি চিকেন, চাউমিন, মোমো, ফ্রায়েড রাইস— সব মিলবে ভোররাত পর্যন্ত। ১০০ থেকে ২০০ টাকার মধ্যে উদরপূর্তি। নেই জিএসটি-র চোখরাঙানি।

হাতিবাগান সর্বজনীন, কাশী বোস লেন, নলিন সরকার স্ট্রিট, সিকদার বাগানের ঠাকুর দেখে যদি মন টানে ভাত, শুক্তো, মালাইকারির দিকে তা হলে চেখে দেখতে পারেন বলরাম ঘোষ স্ট্রিটের ‘হোটেল প্রিয়া’র নিখাদ বাঙালি মেনু। বেলা ১২টা থেকে ৩টের মধ্যে এলে তবেই পাবেন।আবার বিকেল থেকে পাওয়া যাবে রুটি, তড়কা, টিকিয়ার নানা পদ।

ঢুঁ মারতে পারেন প্রিয়ার পাশে ‘হোটেল মনোলোভা’তেও। ৩০০ টাকার মধ্যে দু’জনে পেটপুরে খেতে পারবেন।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

সঞ্জীবনী কেবিন

যদি ইচ্ছে হয় চাইনিজ কিংবা নর্থ ইন্ডিয়ান কিছু খাওয়ার, তা-ও পেয়ে যাবেন উল্টো দিকের ‘সঞ্জীবনী কেবিন’-এ। পকেটমানি বাঁচিয়ে যা থাকে তাই দিয়ে চেটেপুটে খেতে পারবেন এইখানে। পুজোর ক’টা দিন দুপুর ২টো থেকে রাত ৩টে পর্যন্ত খোলা থাকছে সঞ্জীবনী।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

আনিরস

তেমনই বাগবাজার সর্বজনীনের ঠাকুর দেখে ফেরার পথে খেতে পারেন ‘আনিরস’-এ। দুই বন্ধু মিলে ২৫০ টাকার মধ্যে পেট ভরে খেতে পারবেন।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

আপনজন

এ বার আসা যাক দক্ষিণে। শ্যামবাজার থেকে মেট্রো ধরে কালীঘাটে নেমে একডালিয়া, সিংহি পার্ক, দেশপ্রিয় পার্কের পুজো দেখে চলে আসুন সদানন্দ রোডের চিরপরিচিত ‘আপনজন’-এ। রাধাবল্লভী থেকে শুরু করে মাছের কচুরি, কবিরজি, রোল— প্রাণে যা চায় তাই খান মন ভরে।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

দ্য ফুচকা পার্লার

আবার যোধপুর পার্ক, সেলিমপুর, গল্ফগ্রিনের পুজো দেখে আসতে পারেন ২৩৪ বাসস্ট্যান্ডের কাছে দ্য ফুচকা পার্লারে (৮/৭, বিজয়গড়, কলকাতা ৭০০০৩২)। চিকেন, ঘুগনি, চকোলেট, পাইনঅ্যাপেল, ভ্যানিলা সমেত নানা স্বাদের ফুচকা তো পাবেনই, এ ছাড়াও পাবেন চাট, পিৎজা, পাস্তা, স্যালাড, আইসক্রিমের নানা ভ্যারাইটি।

Know Some Budget Hotels Near Famous Durga Puja Pandals- Ananda Utsav 2017

দ্য ফুচকা পার্লারের ব্রেকফাস্ট।

সারারাত ঘুরে বেড়িয়ে ক্লান্ত হয়ে সকাল ৮টায় হাজির হলে পাবেন হেলদি ব্রেকফাস্ট। খোলা থাকছে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। এই ফুচকা পার্লারে আছে সুন্দর অ্যাম্বিয়েন্স আর দাম শুরু কিন্তু মাত্র ৩০ টাকা থেকে।

তা হলে এ বার আর শুধু পুজো পরিক্রমা নয়, সাউথ থেকে নর্থ জমিয়ে হোক ফুড পরিক্রমাও!

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।