চিন্ময় রায়

পুজোর আগে ভুঁড়ি কমাতে ভোজবাজি নয়

চিন্ময় রায়
২১ অগস্ট, ২০১৭, ১৬:৪৯:১৫ | শেষ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১১:১৪:১৪
ব্যায়াম করার ইচ্ছাশক্তি বাড়ান। কোনওটাই ম্যাজিক নয়। লিখছেন চিন্ময় রায়।
ছবি সৌজন্যে: চিন্ময় রায়

বাঙালিবাবুর ভূরিভোজের গল্প সবাই জানে। কিন্তু যত জ্বালা ভুঁড়িটা বিচ্ছিরি ভাবে জানান দিলেই। শরীরে কিলো কিলো ক্যালোরি ঢুকিয়ে মধ্যপ্রদেশকে বর্দ্ধমান করে এখন পুজোর আগে ইন্টারনেট ঘাঁটা। ভুঁড়ি কমানোর যদি কোনও ম্যাজিক ফর্মুলা গুগল সার্চে বেরোয়। সত্যিটা শুনে নিন। ভুঁড়ি কমানোর ম্যাজিক ফর্মুলা নেই। আর একটা সত্যি জানুন। শুধু পেটের ব্যায়াম করলে ভুঁড়ি কমে না। ফ্যাট হল শরীরের কাজ করার একটা জ্বালানি। সেটা শরীর যে কোনও অংশ থেকে খরচ করে, নির্দিষ্ট কোনও অংশ থেকে নয়।

এ বার গ্যারান্টি দেওয়া যায় এমন চারটি ফর্মুলা জেনে নিন-

১। এক্সারসাইজ করার ইচ্ছাশক্তি

২। এক্সারসাইজের ঠিক রুটিন

৩। খাওয়ার নিয়ম

৪। মানসিক চাপ কাটানো

১। এক্সারসাইজ করার ইচ্ছাশক্তি: পুজোকে উপলক্ষ করে ওয়ার্কআউট শুরু না হয় হল। কিন্তু সেটা করতে হয় তাই করা না ভেবে মজা করে করুন। অন্যকে দেখে বা হুজুগের বসে শুরু করলে ১-২ সপ্তাহের মধ্যে মুখ থুবড়ে পড়বেন। ভুঁড়ি কেন কমছে না ভেবে মাথার চুল ছিঁড়লে হতাশা বাড়বে। বরং মনকে বলুন পুজোর জন্য শুরু করে কাজটা লম্বা চালিয়ে যাব।

২। এক্সারসাইজের ঠিক রুটিন: ধরে নেওয়া যাক বাড়িতে ওয়ার্কআউট করবেন। হার্ডওয়্যারের দোকান থেকে ২০ ফুট লম্বা ও ৬ ইঞ্চি চওড়া ব্যাসার্ধের একটা মোটা দড়ি কিনে আনুন। দাম বেশি নয়।

এ বার এক্সারসাইজটা বুঝে নেওয়া যাক

 

রোপ ওয়েভ

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

দ়ড়িটা মাটিতে রেখে দেওয়ালের একটা হুকে আটকে দড়িটাকে সমান ভাগে ভাগ করে নিন। এ বার দুটো ভাগের প্রান্ত দুটোকে ধরুন। দু’হাতে এমন ভাবে উপর-নীচ করুন যেন জলে ঢেউ তুলছেন। দু’হাত মিলিয়ে ৩০-৪০ গুনুন।

রাশিয়ান টুইস্ট

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

ওয়েভ শেষ হলেই চট করে শুরু করুন রাশিয়ান টুইস্ট। মাটিতে বসে শরীরটা পিছনের দিকে আনত (ইনক্লাইন) করে পা মাটিতে রেখে ২ লিটারের জল ভর্তি বোতল বা ডাম্বেল এক বার কোমরের ডান দিকে, তার পর বাঁ দিকে নিন। দু’পাশ মিলিয়ে ২০ বার।

বটল অর ডাম্বেল সুইং

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

রাশিয়ান টুইস্ট শেষ হলেই চট করে উঠে দাঁড়ান। দু’হাতে একটা জল ভর্তি বোতল বা ৩-৪ কেজির ডাম্বেল ধরে সেটা সামনের দিকে দোলান (সুইং) ঠিক ঘড়ির পেন্ডুলামের মতো। দোলানোর সময় হাঁটু ভেঙে বসবেন আর উঠবেন। মোট ১০ বার করুন।

পর পর তিনটি ব্যায়াম নিয়ে একটা সার্কিট। একবার শেষ হলে বিশ্রাম নিন ২ মিনিট। মোট ৩টি সার্কিট সম্পূর্ণ করুন।

আর একটি সার্কিটের নমুনা

রোপ চপ

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

দড়িটা আগের মতো দেওয়ালে লাগিয়ে দু’হাতে অবিরাম আছাড় মারুন। মোট ৩০-৪০ বার। এর নাম হল রোপ চপ।

ওয়াইপার

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

রোপ চপ করেই চট করে মাটিতে শুয়ে প়ড়ে করুন পরের ব্যায়ামটা। দুই হাঁটুর মাঝে একটা বালিশ চেপে ধরে হাঁটু দুটো ভাঁজ করে কোমরের দুপাশে ঠিক গাড়ির কাচ সাফ করার মতো ঘোরান। দু’দিক মিলিয়ে ২০ বার।

জাম্পিং জ্যাক

Tips For Reducing Tummy Before Durga Puja -Ananda Utsav 2017

ওয়াইপার করেই উঠে দাঁড়ান। পা ফাঁক করে সামান্য লাফিয়ে মাথার উপর দু’ লিটারের দুটো জলের বোতল বা ২ কেজির ডাম্বেল দু’হাতে ধরে মাথার উপর তোলা আর নামানো হল জাম্পিং জ্যাক। মোট ২০-৩০ বার করুন। পর পর তিনটে ব্যায়ামের পর বিশ্রাম নিয়ে আবার করুন।

সপ্তাহে ৪-৫ দিন উপরের দুটো সার্কিট করতে পারেন। অন্য দু’দিন ২০ মিনিটের ইন্টারভ্যালে কার্ডিও এক্সারসাইজ করুন। যেমন পর্যাক্রমে জোরে-আস্তে হাঁটা, জগিং, দৌড়নো।

৩।খাওয়ার নিয়ম: দিনের মধ্যে ৭ বার খেতেই হবে। সকালে প্রাতঃরাশ, মধ্য সকাল, মধ্যাহ্নভোজ, বিকেল, সন্ধেবেলা, রাত। নজর দিন ৪০%কার্বোহাইড্রেট (ভাত, রুটি, সব্জি, ফল), ৫০% প্রোটিন (ডিমের সাদা অংশ, চিকেন, ছোলা, রাজমা, সয়া) আর ১০% ফ্যাট (ড্রাই ফ্রুট, অলিভ অয়েল) খাওয়ার দিকে।

৪। মানসিক চাপ কাটানো: কাজের চাপ, পরিবারের চাপে সবচেয়ে বেশি স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ বাড়ে। বিপাকের হার কমে। পেটে মেদ জমে। সুতরাং চিন্তার উপর রাশ টানার চেষ্টা করুন। ভাল হয় ওয়ার্কআউটটা যদি নেশার মতো এনজয় করেন। ডিপ ব্রিদিং, গান চালিয়ে ব্যায়াম, ওয়ার্কআউটের শেষে যোগাসন, স্ট্রেচ দারুণ কাজ দেয়।

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।