লক্ষ্মীর বাহন পেঁচা কেন?

পার্থপ্রতিম আচার্য
০৪ অক্টোবর, ২০১৭, ১৬:০৭:৪৯ | শেষ আপডেট: ০৫ অক্টোবর, ২০১৭, ০২:২৪:২৯
যিনি সর্ব ঐশ্বর্য ও সৌন্দর্যের রশ্মিচ্ছটায় আলোকিতা দেবী, তাঁর বাহন ক্ষুদ্র, দেখতে খারাপ পেঁচা কেন? এর পশ্চাতে পন্ডিতদের মত হলো, যিনি লক্ষ্মীর সত্ত্বগুণ ঐশ্বর্য, অর্থাৎ সত্য, প্রেম, পবিত্রতা, তপস্যা, ক্ষমা, সেবাভাব, তিতিক্ষা পেতে চান। তাঁকে পেচক-ধর্ম পালন করতে হবে। অর্থাৎ, জাগতিক বস্তু থেকে একটু দুরে থেকে নির্জনে এই যোগৈস্বর্য ও সাধন-সম্পদ রক্ষা করতে হয়। নইলে অচিরে নষ্ট হয়ে যায়।
রশ্মিচ্ছটায় আলোকিতা দেবী, তাঁর বাহন ক্ষুদ্র, দেখতে খারাপ পেঁচা কেন?

পেঁচা যদি দিনের বেলায় বের হয়, অন্যান্য পাখিরা তাকে তাড়া করে। গভীর বনে অতি সঙ্গোপনেই পেঁচা বাস করে। সহজে দেখা যায় না। তেমনই পূর্ণতা লাভ না করা পর্যন্ত জাগতিক বিষয়রূপ ব্যক্তি ও বস্তু সব দৈবসম্পদ খেয়ে ফেলে। অপর দিকে লক্ষ্মী অর্থাৎ জাগতিক ধন, ঐশ্বর্য, মান, যশ যে পায় তাকেও পেঁচার মতো দিন-কানা হয়ে থাকতে হয়। ‘দিন-কানা’ অর্থাৎ আধ্যাত্মিকভাবে সে কোনও উন্নতি করতে পারে না। এখানে পেঁচা অন্ধকারের প্রতীকস্বরূপ। এসব কারণে হয়তো শাস্ত্রকারেরা পেঁচাকে লক্ষ্মীর বাহন হিসেবে রেখে দিয়েছেন।

 

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।