পুজোর ছুটিতে এ বার বইয়ের দেশে

রেশমী প্রামাণিক
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১৬:০৭:২৪ | শেষ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১১:১৪:১৪
পুজো মানেই হইহুল্লোড় কিংবা সারারাত জেগে ঠাকুর দেখা নয়। বরং উৎসবের ভিড়ে কোথাও যেন নিজেকে খুঁজে পাওয়া। সারা বছরের মধ্যে এই ক’টা দিন একটু নিজের মতো করে নিজের সঙ্গে সময় কাটানো। আসলে বইপ্রেমীদের কাছে উৎসবের সংজ্ঞা একটু আলাদা।
ছবি: অনির্বাণ সাহা

আলোর রোশনাই, হট্টগোল থেকে দূরে থেকে পছন্দের লেখকদের বই পড়ে আর প্রিয় শিল্পীর গান শুনে তাঁরা পুজো কাটাতে ভালবাসেন। বছরকার কাজের চাপে পছন্দের বই হয়তো ঠিকঠাক পড়া হয় না, মেট্রোতে আসা যাওয়ার পথে চোখ বোলানো হয় বটে, কিন্তু সেই উপলব্ধিটা যেন কোথাও একটা মিসিং। তাই এই ক’টা দিন র‍্যাক থেকে বই নামিয়ে ধুলো ঝেড়ে পছন্দের বই নিয়ে কখন তাঁরা বসবেন তার অপেক্ষায় থাকেন। আর সঙ্গে পুজোবার্ষিকী তো থাকবেই।

You Can Read These Books During Durga Puja- Ananda Utsav 2017

আসলে বই যাঁরা ভালবাসেন তাঁরা তো সারা বছর ধরেই কিছু না কিছু উপহার পেয়ে থাকেন। কাজেই বই জমতে জমতে সংখ্যাটাও বাড়তে থাকে। পুজোর ছুটিতে আমরা নির্ভার থাকতে চাই। তাই শক্তপোক্ত তত্ত্বগ্রন্থের বদলে মুচমুচে, স্বাদু গদ্যে লেখা প্রবন্ধ, গল্প কিংবা উপন্যাস পড়ায় ঝোঁক থাকে বেশি। বাড়িতে অতিথিদের নিত্য আনাগোনা, শঙ্খধ্বনি-উলুধ্বনি আর ঢাকের বাদ্যি কিংবা মাইকের তীক্ষ্ণ, তীব্র ধ্বনি সামলে অখণ্ড মনোযোগ সহকারে বই পড়াটাও কষ্টসাধ্য বিষয়। তাই উপন্যাসের বিষয় যদি হয় রোম্যান্স তা হলে সপ্তমীর নিরালা দুপুর কোথা দিয়ে যেন টুক করে কেটে যায়।অষ্টমীর বিকেলে যদি চারদিক ঘন কালো করে আসা মেঘে ভরে ওঠে তা হলে সাসপেন্স-থ্রিলারে চোখ পাতা যেতেই পারে।

You Can Read These Books During Durga Puja- Ananda Utsav 2017

নবমীর রাতে ক্লান্ত, বিধ্বস্ত প্যান্ডেলফেরত শরীরটাকে নরম বিছানায় এলিয়ে দেওয়ার আগে ইচ্ছে হতেই পারে নরম অনুভূতি নিয়ে লেখা কোনও গল্প পড়ি। আবার দশমীর রাতের বিষণ্ণ মনকে চাঙ্গা করতে অ্যাডভেঞ্চারে সওয়ারি হওয়া যেতেই পারে।এক বার চেষ্টা করে দেখুন না ছুটি ফুরনোর আগে যদি কয়েক পাতা পড়ে ফেলতে পারেন। আর বাকিটা না হয় ডাউনলোড করা থাকল।

মডেল- তৃষিতা ঘোষাল।

মেকআপ- শুভম চক্রবর্তী

ছবি- অনির্বাণ সাহা     

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।