চোখের জলে বিদায় উমাকে

নিজস্ব প্রতিবেদন

এই কয়েককটা দিন যাকে নিয়ে এত মাতামাতি, আজ সেই ত্রিনয়নী পিত্রালয় ছেড়ে চলে যাবেন কৈলাশে। বুকের মাঝে কে যেন বলে বেড়াচ্ছে মন ভাল নেই। বরণ ডালা সাজিয়ে, সিঁথির সিঁদুরে রাঙিয়ে আজ তাঁকে বিদায় জানাতেই হয়। সিঁদুরে মাখামাখি গৃহবধূ উমার কাছে প্রার্থনা করেন স্বামী-সন্তানের সুখের জন্য। জমে ওঠে সিঁদুর খেলা। প্রশাসনের নিয়ম মেনে আজ শুধু বাড়ির প্রতিমা বিসর্জন। ঠাকুরদালান শূন্য করে উমার যখন জলে ভেসে যাচ্ছেন, তখন সবার চোখে জল। এ যেন যাওয়ার আগে রাঙিয়ে দিয়ে যাওয়ার খেলা। দশমীর ঢাকে বিসর্জনের সুর।মুখে হাসি আর চোখে জল নিয়ে টুকটুকে লাল সিঁদুরে চলছে দেবীবরণ। সেই রঙ বুকে নিয়ে পরের বারের জন্য শুরু হল প্রতীক্ষা। আসছে বছর আবার হবে ।

 

সর্বশেষ সংবাদ

ভাইকে এ বছর ভাইফোঁটাতে কী দেবেন ভেবেছেন? চলুন দেখি কিছু উপহারের নমুনা।
থাকছে অসংখ্য সিসি ক্যামেরার নজরদারি।
আজ কালীপুজো। দীপাবলির আলোয় সেজেছে চারিদিক।
শুধু কালীঘাট কিংবা দক্ষিণেশ্বর নয়। এ শহরে ছড়িয়ে রয়েছে ছোট বড় অসংখ্য কালীমন্দির।
বাজি পোড়ানোর সময় কিছু সাবধানতা নিতে বললেন চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা নন্দিনী রায় ও চেষ্ট ফিজিশিয়ান ডা সুস্মিতা রায়চৌধুরি।
মোমপ্রদীপ ও ফ্যান্সি প্রদীপের চাহিদা
শিল্পী মগ্ন হয়ে দেখতে থাকেন নিজের সৃষ্টি
মায়ের হাতের বুঁদিয়া-ভুজিয়া, বন্ধু হাসিনা-কাকলিদের সঙ্গে হুটোপাটির স্মৃতিতে বুঁদ হন কলকাতার বড়বাড়ির বধূ।