সুপারহিট শাওমি নোট ৪

রত্নাঙ্ক ভট্টাচার্য
২০ অগস্ট, ২০১৭, ১৯:৩০:৫১ | শেষ আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১৯:১১:৪৬
কয়েক বছরের মধ্যে শাওমি এখন ভারতের বাজারে অন্যতম পরিচিত মুখ। এখন ভারতেই মোবাইল তৈরির দু’টি কারখানা খুলেছে শাওমি। স্যামসাং-এর পরে শাওমি-ই এখন ভারতে সবচেয়ে বেশি মোবাইল বিক্রি করে।

যাকে বলে গরম লুচি। পাতে পরতে না পরতেই ফুরিয়ে যাচ্ছে। নির্দিষ্ট সময়ে লগ-ইন করে বসে আছেন লক্ষ লক্ষ ক্রেতা। বিক্রি শুরু হওয়ার কিছু ক্ষণ পরেই ফুরিয়ে যাচ্ছে। উত্সবের মরসুম আসার আগেই, এ বছর ভারতের মোবাইল বাজারে সুপারহিট শাওমি-র নোট-৪।

কিছু বাঁধা ধরা মোবাইল ব্র্যান্ডে আটকে থাকা ভারতের বাজারে ঝোড়ো হাওয়ার মতো প্রবেশ শাওমির। চিনের এই সংস্থাটিকে নিয়ে আমাদের খানিক অস্বস্তিই ছিল। মনে খটকা ছিল, চিনে মাল টেকে না। কিন্তু চিনে এই ব্র্যান্ডের পরিচয় চিনের অ্যাপল বলে। কারণ, বেশ কিছু ক্ষেত্রে অ্যাপলের অনুকরণ করার কথা অস্বীকার নয়, গর্বের সঙ্গে স্বীকার করে শাওমি।

ভারতের বাজারে শাওমির প্রবেশ প্রথমে বেশি সোরগোল ফেলেনি। বরং এই ফোনের মাধ্যমে আমাদের গোপন তথ্য চিন জেনে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছিল। এ নিয়ে মামলা পর্যন্ত হয়েছিল। কিন্তু উৎপাদনের গুণমান আর দামের জোরে অচিরেই বাজার বাড়াতে থাকে শাওমি। এ ক্ষেত্রে দোকানে বিক্রির বদলে সরাসরি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্রেতার কাছে পৌঁছতে শুরু করে।

Mobile users are crazy now with Xiaomi Note 4-Ananda Utsav 2017

কয়েক বছরের মধ্যে শাওমি এখন ভারতের বাজারে অন্যতম পরিচিত মুখ। এখন ভারতেই মোবাইল তৈরির দু’টি কারখানা খুলেছে শাওমি। স্যামসাং-এর পরে শাওমি-ই এখন ভারতে সবচেয়ে বেশি মোবাইল বিক্রি করে। আর এই মোবাইলগুলির মধ্যে নোট-৪-এর মতো জনপ্রিয় বোধ হয় কম ফোনই আছে। হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার আর দামের নিরিখে ক্রেতার চোখের মণি হয়ে উঠেছে এই মোবাইল।

কী আছে নোট-৪-এ?

নোট-৪-এর তিনটি সংস্করণ রয়েছে র‌্যামের উপরে ভিত্তি করে। দু’-জিবি, তিন জিবি ও চার জিবি র‌্যামের এই তিনটি সংস্করণে স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ অক্টাকোর ২ গিগাহার্জ-এর প্রসেসর রয়েছে। দু’জিবি ও তিন জিবি র‌্যামের সংস্করণে জায়গা থাকছে ৩২ জিবি। আর চার জিবি সংস্করণে ৬৪ জিবি। প্রতিটি সংস্করণেই রয়েছে হাইব্রিড ডুয়াল সিম। প্রয়োজনে দু’টি স্লটেই সিম ব্যবহার করা যাবে। আবার প্রয়োজনে দ্বিতীয় স্লটে ১২৮ জিবির মেমোরি কার্ড লাগানো যাবে।

Mobile users are crazy now with Xiaomi Note 4-Ananda Utsav 2017

এই ফোন মেটাল বডির। পিছনের ক্যামেরা ১৩ মেগাপিস্কেলের। সামনের ক্যামেরাটি পাঁচ মেগাপিক্সেলের। ক্যামেরা দু’টিই বাজারের নামকরা ব্র্যান্ডগুলির সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে। ক্রেতাদের টানছে নোট-৪-এ ব্যাটারি। ৪১০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম আয়ন পলিমার ব্যাটারিটি আলাদা ভাবে খোলা যাবে না। তবে দ্রুত চার্জ ফুরিয়ে যাবার মতো ঘটনা ঘটবে না। কালো, সোনালি ও ঘন ধূসর— এই তিনটি রঙে নোট-৪ পাওয়া যাচ্ছে।

 

সঙ্গে আছে মিউ অপারেটিং সিস্টেম। এই অপারেটিং সিস্টেম অ্যানড্রয়েডের উপরে ভিত্তি করে তৈরি। নোট-৪ আর জন্য মিউ নতুন সংস্করণ মিউ-৯ নিয়ে এসেছে জিওমি। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে মূল অ্যানড্রয়েডের থেকে এই অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা সুবিধাজনক। সব মিলিয়ে এ বার পুজোয় জিওমির নোট-৪-এর বাজার গরম রাখার সম্ভাবনা প্রবল।

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।