পুজোর সমস্ত মুশকিল আসান এ বার এক ক্লিকেই

বিজ্ঞাপন প্রতিবেদন
২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ২৩:২১:২৯ | শেষ আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ১৮:৩১:৩৪
'ইয়াঃ দেবীঃ সর্বভূতেষুঃ' মাতৃরূপেনঃ সংস্থিতাঃ পিতৃপক্ষের অবসান, মাতৃপক্ষের সুচনা। কলকাতা জুড়ে এখন শুধু পুজো পুজো গন্ধ। পুজোর ঢাকে যে কাঠিও পড়ে গিয়েছে ! সকালের পেঁজা তুলোর মতো মেঘ থেকে সন্ধ্যের পরে লাল-নীল টুনি থেকে ঝাঁ চকচকে লাইটিং - এ শহর জুড়ে যেন এখন এক অন্য আবহাওয়া।এই তো সময়! মা'কে বরণ করে নিতে প্রতি বছরের মতো এই বছরেও তিলোত্তমা সেজে উঠেছে অন্য আবহে। ছাতিম ফুলের গন্ধ জানান দিচ্ছে, শহর তুমি তৈরি তো!

 

শহর তো তৈরি! তৈরি তিলোত্তমাবাসীও। কিন্তু পুজো শুরু হলে কী হবে! পুজোর সঙ্গে সঙ্গে যে অসুররূপে বাধ সাধে ভিড়, রাস্তার যানজট, রাস্তা হারিয়ে যাওয়া, মেট্রো টাইমিংয়ের জন্য মাথাব্যথা থেকে আরও অনেক কিছু। তবে এ বার কিন্তু সেই চিন্তা থেকে আপনি মুক্ত হতেই পারেন। কেন না সোনাটার শারদীয়া গাইড রয়েছে যে!

কী হল? ভাবছেন, এই সোনাটার শারদীয়া গাইড কী? তা হলে বলে রাখি, এক কথায় এই পুজোয় আপনার সমস্ত সমস্যার মুশকিল আসান এই শারদীয়া অ্যাপ। কিন্তু কী ভাবে?

পুজোর কটা দিন কলকাতার চেহারাটাই যেন বদলে যায়। পুজোর ভারে, সমস্যাও বেড়ে যায় তিলোত্তমার। যানজট, ভিড়, ঠেলাঠেলি তো রয়েছেই।  তার উপর রাস্তা বন্ধ, গাড়ি পার্কিংয়ের সমস্যা থেকে মণ্ডপে ঢোকার রাস্তা বদলে দেওয়া, ভিড়ের চাপে রেস্তোরাঁর বাইরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকা,হঠাৎ করে রাস্তা, মণ্ডপ খুঁজে না পাওয়া, এ গুলো তো পুজোর দিনে অকারণে চাপ বাড়িয়ে তোলে।

Sonata Sharadiya guide will solve all the problems during Durga Puja-Ananda Utsav 2016

প্রত্যেক বছরে এই একই ছবি। অথচ সমাধান খুঁজে পাওয়া মুশকিল! তাই এই বছরের পুজোর সময়ের ছবিটা বদলাতে সোনাটা লঞ্চ করেছে তাদের নতুন অ্যাপ - সোনাটা শারদীয়া গাইড। যেটির মাধ্যমে মাত্র একটি ক্লিকেই আপনি পাবেন পুজোর সমস্ত সমস্যার সমাধান। বড় বড় পুজোর লোকেশন, ম্যাপ থেকে শুরু করে আপনার আশপাশের সেরা রেস্তোরাঁর খোঁজ। কিংবা সারাদিনের মেট্রো টাইমিং থেকে কলকাতার সেরা পুজোর মণ্ডপগুলির ঠিকানা ও ছবি। সমস্ত কিছু আপনি পেয়ে যাবেন সোনাটার এই শারদীয়া গাইড অ্যাপে

শুধুই কী তাই! পুজোর পাঁচদিন কী পরবেন তা ঠিক করতে পারছেন না? সোনাটার শারদীয়া গাইড অ্যাপেরস্টাইল গাইডে রয়েছে তারও সমাধান। এই পুজোয় নিজের প্রিয় মানুষটিকে উপহার দিতে চান?চট করে দেখে নিন, শারদীয়া গাইডের গিফট গাইড সেকশনটি। পুজোর সময়ে কোথায় কী অনুষ্ঠান রয়েছে, তারও সন্ধান দেবে এই অ্যাপ।

এই সব তো থাকছেই! সঙ্গে থাকছে সেলফি কনটেস্টও। পুজোয় ঘুরতে বেরোবেন, কিন্তু স্মার্টফোনে সেলফি তুলবেন না! এমনটা হয় নাকি? ব্যস! সেই সেলফিটাই আপলোড করে দিন সোনাটার শারদীয়া গাইডঅ্যাপে। সেরার সেরা সেলফিগুলি যারা আপলোড করবেন, তাঁদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরস্কার।

Sonata Sharadiya guide will solve all the problems during Durga Puja-Ananda Utsav 2016

তিলোত্তমায় বারো মাসে তেরো পার্বণ। আর শরতে শহর জুড়ে এই পার্বণের জৌলুস ছাপিয়ে যায় বছরের বাকি পার্বণগুলিকে। এ পুজো যে বাঙালির শ্রেষ্ঠ পুজো! আর সেই শ্রেষ্ঠ পুজোয় আম আদমির সমস্যাগুলিকে মাথায় রেখেই সোনাটার এই অ্যাপ তৈরির পরিকল্পনা।

কুমোরটুলির পটুয়াপাড়া ছেড়ে ইতিমধ্যেই প্রায় সমস্ত প্রতিমাগুলিই গুটিসুঁটি পায়ে রওনা দিয়েছে মণ্ডপের উদ্দেশে। যেগুলি বাকি রয়েছে, সেগুলিও আর কয়েকদিনের মধ্যেই চলে যাবে নিজের নিজের গন্তব্যে। শুরু হবে পুজো। ঢাক-কাঁসরের আওয়াজ, ধুনো আর বাজির গন্ধে অন্য চেহারা নেবে তিলোত্তমা। ঘড়ির কাঁটার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলবে পায়ে হেঁটে ঠাকুর দেখা, রেঁস্তোরায় খাওয়া-দাওয়া, আর জমাটি আড্ডা। সঙ্গে সোনাটা শারদীয়া গাইডতো থাকবেই।

হাতের ঘড়ির খেয়াল থাকে না, অথচ কখন যে আনন্দের বোধন থেকে মন খারাপ করা দশমীর বিসর্জনের সন্ধিক্ষণ চলে আসে, তা বোঝা সত্যিই দুর্বোধ্য হয়ে পড়ে। তাই এই বছরের পুজোর দিনগুলিকে আরও সহজ ও সুন্দর করে তুলতে নিজের স্মার্টফোনে আজই ডাউনলোড করুন সোনাটা শারদীয়া গাইড

অ্যাপটি পাওয়া যাচ্ছে গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল স্টোরে। সকলকে শারদীয়ার প্রীতি, শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। পুজো ভাল কাটুক সকলের।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারেন এই লিঙ্কে ক্লিক করে: http://bit.ly/2jNUMui

সর্বশেষ সংবাদ

দীপাবলি মানে অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরা। ফুল, প্রদীপ, রঙ্গোলির রঙে মনকে রাঙিয়ে তোলা।
হেডফোন বা হেডসেট এমন বাছুন যা কি না আপনার কান আর শরীরকে কষ্ট না দেয়।
ছবি তোলার প্রথম ক্যামেরা কোডাক যে দিন বাজারে এল বিক্রির জন্য, সেই ১৮৮৮ সালে। পাল্টে গেল ছবি তোলার সংজ্ঞাই।
আগে এই প্রথা মূলত অবাঙালিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন লক্ষ্মীলাভের আশায় বাঙালিরাও সমান ভাবে অংশগ্রহণ করেন।
ধন কথার অর্থ সম্পদ, তেরাসের অর্থ ত্রয়োদশী তিথি।
এই একবিংশ শতাব্দীতে ১৫৯০-এর একটুকরো আওধকে কলকাতায় হাজির করেছেন ভোজনবিলাসী শিলাদিত্য চৌধুরী।
আমেরিকার সেন্ট লুইসের প্রায় ৪০০ বাঙালিকে নিয়ে আমরা গত সপ্তাহান্তে মেতে উঠেছিলাম দূর্গা পুজো নিয়ে।
শারদীয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আগমনীর বার্তা নিয়ে হাজির দীপান্বিতা।