চুল নিয়ে চুলচেরা সাজগোজ

মনীষা মুখোপাধ্যায়

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৩:০১
শেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৩:৫৫

চুলের স্টাইল এমন করুন, যা সব পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যায়।


পুজো প্রায় দোরগোড়ায়। কিন্তু পুজোয় জামাকাপড়ই তো আর শেষ কথা নয়! রয়েছে সাজগোজও। নিজেকে সুন্দর করে তুলতে নারী-পুরুষ নির্বিশেষ চুলের যত্ন অন্যতম। পুজোর মধ্যেও তাই সব সাজের অন্যতম হল চুলের সাজসজ্জা। তাই চুলের ভাবনা শেষ মুহূর্তের জন্য ফেলে রাখাটা বোকামি হবে। এখন থেকেই চিন্তা-ভাবনা শুরু করে দিন।

মাথায় রাখুন,  কেশসজ্জা হতে হবে পোশাকের মানানসই। এ বছর যেমন ভারতীয় পোশাকের দিকেই ঝুঁকেছেন শহুরে কন্যেরা, আবার দু’-এক দিনের জন্য ফিউশনের চাহিদাও রয়েছে তুঙ্গে। তাই চুলের স্টাইল এমন করুন, যা দু’ধরনের পোশাকের সঙ্গেই মানিয়ে যায়। তেমনই কিছু টিপস রইল আপনাদের জন্য।

কার্লি হেয়ার:

‘মাথা ভর্তি ঝাঁকড়া ঝুল’ কম-বেশি সকলেই আমরা এই প্রবাদটির সঙ্গে পরিচিত। ছোটবেলায় চুল কাটার সময় হলে বাড়ির বড়দের মুখে মুখে ফিরত এই বুলি। তবে সময় বদলেছে। মাথা ভর্তি কোঁকড়ানো ঝুল, থুড়ি চুল এখন বেশ ট্রেন্ডি। কুল অ্যান্ড ক্যাজুয়াল বলতে পারেন। তবে কাঁধ পর্যন্ত চুল যাঁদের, তাঁদেরই এমন ‘লুক’ মানায়।  এমন চুলেহ্যান্ডলুম শাড়ি ও ম্যাক্সিড্রেস ভাল লাগে। সঙ্গে অক্সিডাইজের গয়না পরুন। যে কোনও পার্লারে গিয়ে কার্ল করাতে পারেন। খরচের নানা রকম ধাপ আছে। রেস্ত রাখুন ৮০০-২০০০ টাকা।

আরও পড়ুন: পুজোয় জেল্লাদার ত্বক চান! এখন থেকেই প্রস্তুতি নিন

লেয়ার্ড কার্ভস:

গোল মুখ আর লেয়ার্ড কার্ভস যেন রাজযোটক! চুল লেয়ার্ড হবে। মুখের চারদিক দিয়ে কার্ভস নামবে। মনে হবে, চুল দিয়ে মুখ ঘেরা রয়েছে যেন। চুড়িদার এবং স্লিভলেস পোশাকের সঙ্গে ভাল মানায়।

লো মেসি বান:

ঘাড়ের ওপর আলুথালু খোঁপাকেই লো মেসি বান বলে। পাড়ার প্যান্ডেলে আড্ডা দেওয়াই হোক বা  সবাই মিলে রেস্তরাঁয় খেতে যাওয়া— হইহুল্লোড়ের মধ্যেও শান্ত, স্নিগ্ধ দেখাবে আপনাকে। হালফিলে এই স্টাইলেই ব্রিটেনবাসীর মন কেড়েছিলেন প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী মেগান মর্কেল।

সাইড সুইপ্ট ব্যাঙ্গস:

অফিসের চাপে পুজোর আগে বাড়তি মেদটুকু ঝরিয়ে ফেলতে পারেননি। কিন্তু পুজোয় ফিটফাট না দেখালে হয়! চিন্তা নেই। পার্লারে গিয়ে সাইড সুইপ্ট ব্যাঙ্গ কাটিয়ে নিন। স্ট্রেট এবং ঢেউ খেলানো চুলেই এই কাট মানায়। মাথার একপাশ থেকে চুল ছোট থেকে বড় করে এমনভাবে কাটা হয়, যাতে কাটিং শেষ হয় থুতনির কাছে এসে । এতে গালের একটা অংশ ঢেকে যায়। তাই গোলগাল চেহারা হলেও মুখ দেখে বোঝা যায় না।

পিক্সি কাট:

লম্বা চুল একেবারেই পছন্দ নয়।অথচ শাড়ি পরার লোভও রয়েছে। সেক্ষেত্রে  পিক্সি কাটই আদর্শ। এতে মাথার পিছন ও পাশের দুই অংশের চুল একেবারে ছোট করে কাটা হয়। শুধু সামনের অংশ লম্বা থাকে। সঙ্গে সার্প এজেস। চুড়িদার ছাড়া বাকি সব পোশাকের সঙ্গেই যায় এই পিক্সি কাট। তবে সাজগোজ হতে হবে স্মার্ট। 

আরও পড়ুন: মিডি ড্রেসে সেক্সি

আরও পড়ুন: খালি গায়েই রূপ খুলবে জামদানির সাজে​

ফিশটেইল ব্রেইড:

লম্বা চুলে স্বচ্ছন্দ এবং খুব বেশি এক্সপেরিমেন্ট না করতে চাইলে দিব্যি কাজ চালিয়ে নিতে পারেন। গোড়া থেকে আলগা বিনুনি, একেবারে নীচে পর্যন্ত। চাইলে মাথার মাঝখান থেকেও বিনুনি করা যায়। তবে এটি খাঁটি ভারতীয় লুক। জিন্সের সঙ্গে তো যায়ই না। ফিউশন কুর্তির সঙ্গেও বিনুনি না করাই ভাল।

ওয়াটারফল ব্রেইড:

চুল খোলা রাখতে চান অথচ চান না জট না পড়ুক। তাহলে ওয়াটারফল ব্রেইড করতে পারেন। মাথার দু'পাশ থেকে এক গোছা করে চুল নিন। বিনুনি করে পিছনের দিকে নিয়ে যান। একটা ক্লিপ বা কিছু দিয়ে আটকে দিন। নীচের চুল খোলাই থাকবে।