পোশাক থেকে চুলের বাহার, শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় রইল বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

অনুপম চট্টোপাধ্যায়

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:৩৯
শেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৩:১০

এ বার বাদ দিন জরি, চুমকি, সিন্থেটিক ফ্যাব্রিক।— জানালেন ডিজাইনার অনুপম চট্টোপাধ্যায়।


রঙের মাতন

অনেকেরই কেনাকাটা প্রায় শেষের মুখে। শেষ বারের মতো ঝালিয়ে নেওয়া কিছু বাদ পড়ে গেল কি না! কেউ আবার মহালয়ার পরের দিন ক’টাকেই সরিয়ে রেখেছেন কেনাকাটার জন্য। তবে যখনই কিনুন রঙের বিষয় মাথায় রাখতেই হবে। উজ্জ্বল আর প্যাস্টেল শেডের মিশেলই এ বারের পুজো ট্রেন্ড। ছেলেদের জন্য যেমন অলিভ গ্রিন, ব্রাউন, গ্রে আছে অন্য দিকে আবার  পিঙ্ক, টম্যাটো অরেঞ্জ নানা রকম ব্লু-এর শেডও আছে তাদের জন্য । মেয়েরা বরং বেছে নিন অনিয়ন পিঙ্ক, পেস্তা এই সব রং।

ওয়ার্সি কলকাতা এক্কেবারে খাদি, খদ্ধর, হ্যান্ডলুমে কাজ করে। এমন ফ্যাব্রিক পোশাকে ব্যবহার করা হয় যাতে আমাদের চামড়া সহজে নিঃশ্বাস নিতে পারে। যাঁদের চেহারা ভারী, তাঁরা  ব্রাউন, ব্ল্যাক, অলিভ গ্রিন, ডার্ক মেরুন পরুন আর লাইম ইয়লো, অফ হোয়াইট এই রংগুলো এড়িয়ে চলুন।

ছেলেরা এ বার বেশি ফ্যাশনেবল

ছেলেদের পোশাকের ধারাটাই এখন বদলে গিয়েছে। ছেলেরা প্রচুর জাম্প সুট পরছে। সেখানে পিঙ্ক, ব্রাউনের ব্যবহার হচ্ছে খুব। আসলে নিজের রুচি আর গায়ের রঙের কথা মাথায় রেখে পোশাকের রং থেকে কাট নির্বাচন করা উচিত। আর শপিংয়ের সময় পারলে এক জন ফ্যাশন কনসালটেন্টের পরামর্শ নিয়ে শপিং করুন।

আরও পড়ুন: গায়ত্রী দেবী, উত্তমকুমার ও রণবীর সিংহের সাজেই বাজিমাত করুন এ বার

মিলেমিশে পোশাক

ডেনিমের সঙ্গে লিনেনের শার্ট। লিনেন ট্রাউজারের সঙ্গে লাইম গ্রিন শার্ট। এমন কম্বিনেশনেই হয়ে উঠুন অনবদ্য। ষষ্ঠীর দিন হালকা পোশাক পরুন। সপ্তমীতে ড্রেপ কুর্তার সঙ্গে স্ট্রেট প্যান্ট। অষ্টমীতে অবশ্যই আর্দির পঞ্জাবী আর জলচুরি ধুতি পরুন। ভিড়ের মধ্যে আলাদা লাগবে। এটা চিরকালের দুর্গা পুজোর পোশাক। এখানে একটু বদল আনতে চাইলে স্নিকার্স পরুন। নবমীতে শেরওয়ানি বা প্রিন্স কোট পরতে পারেন তবে সবটাই হ্যান্ডলুম হলে ভাল হয়। কেউ চাইলে ষষ্ঠী-সপ্তমীতে জাম্প সুট পরতে পারেন।

আরও পড়ুন: ফ্যাশনে কম যান না পুরুষও, কী ভাবে নজর কাড়বেন মহিলা মহলে?

চুল তার বিদিশার নিশা

যা চট করে নিজে করা যায়, চুলের সে রকম স্টাইল করুন। চুলে এ বার ব্রেডিংয়ের চল এসছে। আগেকার দিনে ঠাকুমারা যেমন খেজুর বিনুনি করতেন তেমন। অষ্টমীর দিন খোঁপা তার সঙ্গে ফুলের মালা। কেউ চাইলে ব্যাক কোম্ব করে পনিটেল করতে পারেন। তবে ওয়ার্সি কলকাতা এ বার একটা খোঁপা করে এক দিকে ফুল লাগানোর ট্রেন্ডটা তুলে ধরতে চায়। যেমন ধরুন সাদা লাল পাড় শাড়ির সঙ্গে মাথায় রঙ্গন ফুল। পিঙ্ক শাড়ি তো  কানের পাশে গোঁজা মাধবীলতা। সাদা গোল্ড শাড়ি তো আকন্দ ফুল। এ ভাবে যদি ভাবেন, লুকটাই বদলে যাবে।

ব্লাউজে দুগ্গা

ইদানীং ব্লাউজে বা পোশাকে দেব-দেবীর মুখ আঁকার চল হয়েছে। আমি ব্যক্তিগত ভাবে এই ধারার পক্ষে নই কিন্তু কেউ চাইলে পরতেই পারেন। কিন্তু খেয়াল রাখবেন এমব্রয়ডারি যেন নিখুঁত হয়।