পুরুষ-মনে আলো জ্বালুন সিকুইনের হাত ধরে! পুজোর ফ্যাশনে রাখুন এটাও

নিজস্ব প্রতিবেদন

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৫:২৩
শেষ আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৫:৩৫

নৈশপার্টিতে অন্যতম সেরা বাছাই হতে পারে এই সিকুইন।


সে যুগ সিকুইনের। না, খুব একটা আটপৌরে আবহে নয়, বরং পুরুষের একবুক অপেক্ষাকে পাত্তা দিতে ইনি মাঝে মাঝে দেখা দিতেন ডিস্কে। সিনেমাতেও ডিস্কো সং মানেই ললনার পরনে পোশাকের উপর চকচকে সিকুইন। সঙ্গে মেদুর গানের মূর্ছনা। ইতালীয় শব্দ জেক্কিনো থেকে সিকুইন শব্দের আমদানি হলেও, এ পোশাক বহু পুরনো। এমনকি, সিন্ধু সভ্যতাতেও সিকুইনের বর্ণনা মেলে। তখন অবশ্য সিকুইনের চটক বাড়াতে সোনা-রুপো নানা কিছুই যুক্ত হত এতে। তার পর তা দিয়ে তৈরি হত পোশাক। যোগ হত তৎকালীন মুদ্রাও। তবে চকচকে এই পোশাকে গরিবদের কোনও অধিকার ছিল না।

যুগ বদলেছে। এর সঙ্গে হাত ধরে পাল্টে গিয়েছে সিকুইন নামক ধাতুর অবস্থান। বিংশ শতকের গোড়ায় জিলাটিনের সিকুইন পোশাক ব্যবহৃত হত নানা ছবিতে। ব্যবহার হত জুতো, ব্যাগেও। তবে ফ্যাশনের দৌড়ে সেই জিলেটিনের ফ্যাশনেবল ব্যাগ-জামা-জুতোও টিকল না, কারণ তা উচ্চ তাপমাত্রায় গলে যেত। প্লাস্টিকের সিকুইন এর পর এল বাজারে। দ্রুত জনপ্রিয় হতে শুরু করল তা। তবে এখন আর স্রেফ ডিস্কে আটকে নেই এই সিকুইন। বরং পুজোর ফ্যাশনেও বেশ ‘ইন’ সিকুইনের পোশাক। বিশেষ করে, নৈশপার্টিতে অন্যতম সেরা বাছাই হতে পারে এই সিকুইন।

প্লাস্টিকের সিকুইনে নানা রং মিশিয়ে তাতে যেমন ঔজ্জ্বল্য এল, তেমনই উপরে পাথর বসিয়ে সেই পোশাকেই নিয়ে আসা হল পার্টি লুক। এই সিকুইনেরও অনেক প্রকারভেদ আছে। এ বার পুজোয় এগুলোর মধ্যে থেকেই একটা সরিয়ে রাখতে পারেন পুজোর পার্টির জন্য। তবে ম্যাট লুকের সিকুইন সহজেই যেতে পারে সকালের আড্ডাতেও।

আরও পড়ুন: উৎসবের মরসুমে সোনার গয়নার সাজেই হয়ে উঠুন অনন্যা!

ম্যাট সিকুইন: সাধারণত মেটালের আধিক্য বেশি থাকে এই সিকুইনে। প্লাস্টিকের তৈরি হলেও ম্যাট ফিনিশের এই সিকুইন ঝলমল করে না। কিন্তু এর উজ্জ্বল উপস্থিতি ভিড়ের মধ্যে আলাদা করবে আপনাকে। সকালের অনুষ্ঠানেও নির্দ্বিধায় পরে ফেলতে পারেন ম্যাট সিকুইন।

আরও পড়ুন: পোশাক থেকে চুলের বাহার, শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় রইল বিশেষজ্ঞের পরামর্শ​

গ্লসি সিকুইন: নামেই মালুম, এই সিকুইন খুবই চকচকে। ‘প্রাইমারি কালার’ অর্থাৎ লাল, নীল, হলুদ, সবুজ তো বটেই, এমনকি রামধনু রঙের এই সিকুইনও দেখতে বেশ উজ্জ্বল। তবে এই ধরনের সিকুইন রাতের পার্টির জন্য আলাদা করে রাখুন।

সেল্ফ কালার্ড সিকুইন: কনট্রাস্ট রঙেই যে সিকুইন বাছতে হবে এমন কোনও কথা নেই কিন্তু। বরং পোশাকের সঙ্গে রং মিলিয়ে ব্যবহার করুন একই রঙের সিকুইন। তাতেও কিন্তু ফ্যাশনের ঘরে আপনিই রাজা, থুরি রানি। লাল পোশাকের সঙ্গে লাল সিকুইন কিংবা কালো ওয়ান কাটের সঙ্গে মিশকালো সিকুইন— পার্টিতে সকলের মধ্যে আলাদা হওয়ার দাওয়াই এটাই। খানিক শরীরী নড়াচাড়াতেই এই সিকুইন জানান দেবে তার উপস্থিতি।

তবে এ পোশাক এতই উজ্জ্বল যে এর সঙ্গের সাজ হতে হবে পরিশীলিত। কান ও হাতে বরং গয়না পরুন। সিকুইনের সঙ্গে গলা থাকুক ফাঁকা।