পুজোর সাজে ব্যাগও চাই, বাছুন কিনুন গুণ জেনে

রোশনি কুহু চক্রবর্তী

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ০৬:০০
শেষ আপডেট: ০১ অক্টোবর, ২০২০, ২২:১১

চিন্তা কী, দেশের নানা প্রান্তের হাতে বোনা ব্যাগ তো রয়েছে। আর সুতির ঝোলা তো কবে থেকেই ইন্টেলেকচুয়াল বাঙালির সঙ্গে সমার্থক।   


করোনা আবহে দুর্গাপুজো। কী যে হবে! সাজপোশাকই বা কেমন হবে! এ সবের মাঝেও আরও একটা চিন্তা তো রয়েইছে। কারণ বাইরে বেরতে হলে শুধু পার্স নিয়ে বেরিয়ে গেলেন, এমনটা হবে না। সোপ পেপার, স্যানিটাইজার, অ্যালকোহল ওয়াইপ, জলের বোতল থাকবেই ব্যাগে। বাইরে থেকে কিছু খাওয়ার ভয়ে কেউ কেউ আবার বিস্কুট নিয়েও বেরবেন বলে ভাবছেন এখন থেকেই। কিন্তু সে ক্ষেত্রে একটা ব্যাগ তো নিতে হবে। চামড়ার ব্যাগ তো ধোওয়া যাবে না। তা হলে?

চিন্তা কী, দেশের নানা প্রান্তের হাতে বোনা ব্যাগ তো রয়েছে। আর সুতির ঝোলা তো কবে থেকেই ইন্টেলেকচুয়াল বাঙালির সমার্থক।   

করোনা আবহে উৎসব। তাই বাইরে বেরলে সব মিলিয়ে সাজুগুজুর জমাটি সুযোগ না থাকলেও ফ্যাশনে খুব একটা আপস করতে রাজি নয় বাঙালি। বচ্ছরান্তে পকেট কিঞ্চিত হালকা বুঝি? তা কবেই বা পকেটের স্বার্থে শখকে বিসর্জন দিয়েছে বাঙালি? অতএব সুতির ঝোলা, কাঁথা কাজের ছোট্ট বটুয়া, বাগরু কটনের ব্যাগ-- সবই এ বার ফ্যাশনিস্তা বাঙালির পূজার সাজের অঙ্গ।

ঢাকুরিয়ার দক্ষিণাপণ কিংবা গড়িয়াহাট-হাতিবাগানের ফুটপাতে বিক্রি এ বছর আগের তুলনায় অনেকটাই কম। এখান থেকে ব্যাগ কিনলে একজন হস্তশিল্পীকে সাহায্য করা হবে বই কি। শান্তিনিকেতনের বাটিক-কাঁথার ঝোলা কিংবা কোচবিহার-দিনাজপুরের শিল্পীদের শীতলপাটি কিংবা পাটের ব্যাগও ব্যবহার করতে পারেন। কারণ এই ব্যাগগুলি ধুয়ে নেওয়া বা স্যানিটাইজ করা অপেক্ষাকৃতভাবে সহজ।

আরও পড়ুন: উৎসবের সেলিব্রেশনে লাগুক রামধনুর ছোঁয়া

গামছা প্রিন্টের এই ব্যাগ এ বার পুজো মাতাতে পারে। ছবি সৌজন্য: কারুবাসা।

লাল হলুদ কিংবা গামছা প্রিন্টের ব্যাগে ঝলমলে হয়ে উঠতে পারে এ বারের পুজো। এ ছাড়াও আরেক ধরনের ব্যাগ কিন্তু এ বারের পুজোর ফ্যাশনে বড় জায়গা নিতে চলেছে। দেখতেও কেতাদুরস্ত, এদিকে সাবান জলে কাচার ফলে করোনা আতঙ্ক থেকেও মুক্তি। কলকাতায় 'কারুবাসা' নামের একটি বুটিকের কর্ণধার টুম্পা মণ্ডল এই প্রসঙ্গে জানান, "রোজের ব্যবহার এবং ফ্যাশন-- এই দু'য়ের কথা মাথায় রেখেই এমন ব্যাগ বানিয়েছি।" এদিকে শাড়ি হোক বা পাঞ্জাবি, কটন শার্ট কিংবা কুর্তি-- সবের সঙ্গেই দিব্যি মানানসই এই ক্যানভ্যাস ব্যাগও কিন্তু পুজোর ফ্যাশনে ইন হতে চলেছে বলে মনে করছেন ডিজাইনাররা।

আরও পড়ুন: পুজোর সাজে সঙ্গী থাকুক হাতে বোনা এই সব শাড়ি

সাধারণ চামড়া বা ফোমের ব্যাগে সনাতনী এক রঙা সাদা, কালো, মেরুন, সোনালি, রুপোলি এবারে পিছনের সারিতে। তার বদলে ব্যাগ দুনিয়ায় সামনের সারিতে জায়গা করে নিয়েছে পার্পল, কুসুম হলুদ, টারকোইশ ব্লু, ম্যাজেন্টা, লালের মতো ব্যাগের ক্ষেত্রে তথাকথিত অফবিট রং। বাই কালারের ব্যাগও এবারের ফ্যাশনে ইন। আর ক্যানভ্যাস ব্যাগের চিরাচরিত সাদা-কালো জুটি তো রয়েইছে। একটা সুন্দর ব্যাগ না থাকলে কিন্তু সাজটাই মাটি। তাই ঝোলা হোক বা হাতে বোনা ব্যাগ, আপনার ফ্যাশন সঙ্গীকে ভুলে যাবেন না কিন্তু।