গয়না বা পোশাক নয়, স্যানিটাইজার হোল্ডারে হয়ে উঠুন অনন্য

পরমা দাশগুপ্ত

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৭:০০
শেষ আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২২:০৬

বাইরে বেরলে স্যানিটাইজার কিন্তু বাধ্যতামূলক। তাই হোল্ডার থাকুক পুজোর সাজে।


করোনার উদ্বেগের মধ্যেই তো পুজো এল বলে!

এ বছর ঠাকুর দেখতে যাওয়া হবে কি না বা উচিত কি না, সে বিতর্ক বরং থাক। অন্তত পাড়ার মণ্ডপে যেতে তো মন চাইবেই। পরিস্থিতি যা বলছে, সেখানে যেতেও সঙ্গে চাই মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের ভরসা। আর তার হাত ধরেই গুটিগুটি পুজোর সাজে ঢুকে পড়ছে রকমারি স্যানিটাইজার হোল্ডার।

বাজার আর চাহিদা বুঝে ইতিমধ্যেই অনলাইন শপিং সাইটে নানা রং, ডিজাইন ও প্রিন্টের স্যানিটাইজার হোল্ডারের ছড়াছড়ি! পুজোর সাজের সঙ্গে ম্যাচ করে কিনে ফেলাটা খুব কঠিন হবে না। তবে হ্যাঁ, মাথায় রাখুন, সেগুলো এর পরেও যথেষ্টই কাজে লাগবে কিন্তু। তাই প্রয়োজন ব্যবহারকারী বা উপলক্ষের ধরন বুঝে বেছে নিন স্যানিটাইজার হোল্ডার।

সাজের বাহারে: বাঙালি কন্যার পুজোর সাজ এখনও শাড়িতেই শুরু, শাড়িতেই শেষ। সাবেকিয়ানায় মোড়া সাজে তাই বেছে নিতে পারেন একটু বটুয়া ধাঁচের হোল্ডারে ট্র্যাডিশনাল প্রিন্ট- মানে কাঁথা কাজ থেকে বাটিক, মধুবনী, গুর্জরি কিংবা রাজস্থানের কাজ। শাড়িই হোক বা সালোয়ার কুর্তি- দেশি সাজের সঙ্গে দিব্যি মানাবে এই সব।

‘কুল’ ক্যাজুয়াল: স্কার্ট-টপ-জিন্স-শার্টের ক্যাজুয়াল সাজও তো থাকবেই। সঙ্গে থাক ফ্লোরাল বা অ্যানিম্যাল প্রিন্ট, জ্যামিতিক ডিজাইন কিংবা মজাদার প্যাটার্নের, বার্তা লেখা নানা আকারের স্যানিটাইজার হোল্ডার। কম বয়সিদের পুজোর সাজে এগুলো কিন্তু এ বার ‘ইন’!

অন্য মেজাজ: বাটিক হোক বা মধুবনী আর ফ্লোরাল কিংবা জ্যামিতিক নকশা-পুরুষদেরও নানা রকম পছন্দ রয়েছে। বাড়ির কোনও কোনও ছেলে হয়তো ঝুঁকবেন এক রঙা, সিরিয়াস স্যানিটাইজার হোল্ডারের দিকেই। নীল, কালো, খয়েরির মতো গাঢ় রঙেরই তাতে পাল্লা ভারী। 

আরও পড়ুন: গয়না বা পোশাক নয়, স্যানিটাইজার হোল্ডারে হয়ে উঠুন অনন্য

‘ছোট্ট’ মজা: বাড়ির বাচ্চাদের স্যানিটাইজার সঙ্গে রাখার অভ্যাস গড়ে দিতে চাই মজাদার একটা হোল্ডার। যাতে স্রেফ তা নেওয়ার টানেই স্যানিটাইজার সঙ্গে নেওয়ার কথা মনে রাখে ছোটরা। ওদের হাতে দিন উজ্জ্বল রং আর প্রিন্ট কিংবা পছন্দের কার্টুন আঁকা স্যানিটাইজার হোল্ডার। পছন্দ হবেই!

বাহারি স্যানিটাইজার হোল্ডার মাতাবে এ বার পুজোর ফ্যাশন। ফাইল চিত্র। 

ফর্ম্যালে চোখ: ধরা যাক, স্যানিটাইজার হোল্ডার কিনছেন শুধু পুজো নয়, বরং পরের সময়টার কথা মাথায় রেখেও তা হলে বরং বেছে নিন চেক, স্ট্রাইপের মতো রোজকার প্রিন্ট আর প্যাস্টেল শেড- যা পুজো তো বটেই, আগামী দিনে অফিসের টেবিলেও দিব্যি মানিয়ে যাবে। ব্রাউন লেদারের একটা কেতাদুরস্ত হোল্ডার কিনবেন নাকি?

আরও পড়ুন: উৎসবের সেলিব্রেশনে লাগুক রামধনুর ছোঁয়া

হাতের ছোঁয়া: পুজোয় প্রিয় জনকে উপহার তো দিচ্ছেনই। এ বার পুজোয় যদি নিজের হাতেই বানিয়ে দেন একটা স্যানিটাইজার হোল্ডার? তেমন ঝক্কিরও নয় কিন্তু। একটু শক্তপোক্ত কাপড় ছোট্ট একটা ব্যাগের আকারে সেলাই করে নিন। এর পরে তাতে ডিজাইন করতে ফ্যাব্রিক রঙে ছবি আঁকতে পারেন, এমব্রয়ডারি করতে পারেন, সাজাতে পারেন বিডস বা অ্যাপ্লিকে। এ বার তাতে রিং পরিয়ে কিংবা স্ট্র্যাপ লাগিয়ে উপহার তুলে দিন কাছের মানুষদের হাতে। দেখুন না এই বিষণ্ণ দিনেও কেমন চওড়া হয়ে যায় তাঁদের মুখের হাসি!

হ্যাঁ, বাইরে বেরলে স্যানিটাইজার কিন্তু বাধ্যতামূলক। আর তাই হোল্ডার থাকুক পুজোর সাজে। ফ্যাশনে লাগুক স্বাস্থ্যবিধির ছোঁয়া।