হলুদেই আলো খুঁজছে পুজোর ফ্যাশন

সাবেরী গঙ্গোপাধ্যায়

১৪ অক্টোবর, ২০২০, ১৪:০৩
শেষ আপডেট: ১৪ অক্টোবর, ২০২০, ১৪:৪৯

ভারতীয়দের গমরঙা স্কিনটোনের সঙ্গে এই হলুদ রং এত চমৎকার মিশে যায় বলেই এর এত কদর।’’


‘ইয়েলো ইয়েলো ডার্টি ফেলো’র দিন শেষ! আলিয়া ভট্ট থেকে দীপিকা পাদুকোন ছবির প্রচার থেকে পার্টি ওয়্যারে ইদানীং বেছে নিচ্ছেন হলুদ রংকেই। এ বার পুজোয় ফ্যাশন সাইটগুলো একটু ঘাঁটলেও চোখে পড়বে হলুদ জামাকাপড়ের বাড়তে থাকা কদরের ছবিটা।

আসলে বসন্তের হলদে রঙা রোদ্দুরের চনমনে ভাব, স্কুলের কালার বক্সে হলুদ প্যাস্টেল বা ওয়ার্ডসওয়ার্থের ‘ড্যাফোডিল’য়ের কথা ভাবলে মনটা সত্যিই তরতাজা হয়ে যায়। সে কথা মাথায় রেখেই এই অতিমারির আঁধারে বাড়ছে হলুদের মতো পজিটিভ রঙের চাহিদা।

ডিজাইনার অর্চনা কোচর বলছেন “হলুদ এমন একটা রং, যেটা পরলে সকলের নজর আপনার উপর পড়বেই। তা ছাড়াও, রংটার মধ্যেই অদ্ভুত একটা পজিটিভ ভাইব আছে। পুজোর সকালের আড্ডা হোক বা রাতের খাওয়াদাওয়ার প্ল্যান- এই বিষন্ন সময়ে আত্মবিশ্বাস জাগিয়ে তুলতে হলুদ রং বাছুন।”

আরও পড়ুন:  অষ্টমীতে যে মেয়ের সঙ্গে আইসক্রিম খাওয়ার কথা, মাস্ক পরা এ সে তো?

প্যাস্টেল শেড, ব্রাইট অরেঞ্জ—এই ধরনের রঙের সঙ্গে হলদে রং মানায় ভাল।

ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পলের কথায়, ‘‘হলুদের যে কোনও শেড এ বার পুজোয় ইন। শুধু লেমন ইয়েলো নয়, উজ্জ্বল হলুদ, এমনকি ফ্লুরোসেন্ট নিয়ন হলুদও হইহই করে চলছে। ভারতীয়দের গমরঙা স্কিনটোনের সঙ্গে এই হলুদ রং এত চমৎকার মিশে যায় বলেই এর এত কদর।’’

শারদীয়া নিশিতে সকলকে চমকে দিতে অগ্নিমিত্রার টিপস- ইলেকট্রিক ব্লু ব্লাউজের সঙ্গে হলুদ শিফন গায়ে জড়াতে পারেন। আর ব্লাউজ যদি হলুদ হয়, তার সঙ্গে থাক হালকা বেজ বিস্কুট রং বা সাদা শাড়ির কম্বো। চারপাশের মানুষের চোখে ঝিলমিল লেগে যেতে বাধ্য! তবে রং বাছাইয়ের ক্ষেত্রে একটু সতর্ক থাকার কথা মনে করিয়ে দিচ্ছেন অর্চনা। তাঁর মতে, হলদে হ্যান্ডব্যাগ হোক বা ট্রাউজার, একটু খেয়াল করে পরতে হবে। যদি ফাংকি ব্রেসলেট বা হলুদ রঙের নেকপিস পরেন, তা হলে পোশাক সাদা বা কালো রঙে বাছা ভাল। হলুদ রঙা পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে জুতো বা ব্যাগ নিয়ে ফেললে সব মাটি! হলুদ জুতো বা ব্যাগের ক্ষেত্রেও একটু সাবধান হতেই হবে। সে ক্ষেত্রে প্যাস্টেল শেড বা সাদা কালোর পোশাক পরাই ভাল।

ইলেকট্রিক ব্লু ব্লাউজের সঙ্গে হলুদ শিফন গায়ে জড়াতে পারেন।

প্যাস্টেল শেড, ব্রাইট অরেঞ্জ—এই ধরনের রঙের সঙ্গে হলদে রং মানায় ভাল। হলুদ হেয়ার ব্যান্ড, মাথার ফুল, ক্লিপ বা বেল্ট যে কোনও পোশাকের সঙ্গে পরে ফেলতে পারেন। তবে বলে রাখা ভাল, ফ্লুরোসেন্ট বা নিয়ন রঙের পোশাক বেশ কিছু দিন ধরে রমরমিয়ে চললেও এখন ট্রেন্ড বলছে ফ্লুরোসেন্ট পিঙ্ক বা সবুজের বাজার মন্দা। সেখানে জায়গা করে নিয়েছে ফ্লুরোসেন্ট হলুদের জৌলুস।

আরও পড়ুন : উৎসবের সেলিব্রেশনে লাগুক রামধনুর ছোঁয়া

শুধু পোশাক নয়। অ্যাকসেসরিজ ডিজাইনার রাধিকা চহ্বাণের মতে- বেল্ট, ঘড়ি, রিম দেওয়া সানগ্লাস, জুতো, ব্যাগের ক্ষেত্রে ছেলে-মেয়ে নির্বিশেষে হলুদ রং বেছে এক ধরনের সাহসী লুক তৈরি করছে ইদানীং। পশ্চিমি পোশাকের পাশাপাশি দেশি সাজেও ছবিটা একই। ফুলিয়ার দিগন্ত বসাক জানালেন, এখন হলুদ টাঙাইল আর ঢাকাইয়ের সব চেয়ে বেশি চাহিদা। পার্ক স্ট্রিটের এক শাড়ির দোকানের বিক্রেতা তো বলেই বসলেন, ক্রেতার ভিড় টানতে হলুদ শিফন জর্জেট ডিসপ্লেতে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন তাঁরা!

ফ্লুরোসেন্ট নিয়ন হলুদও হইহই করে চলছে।

কোন চেহারায় কেমন হলুদ

চাপা রং: মাস্টার্ড ইয়েলো বা ঘন হলুদ। নিয়ন হলুদ চলবে না।

ফর্সা রং: লেমন ইয়েলো, উজ্জ্বল নিয়ন।

কালো রং: সোনা রঙের হলুদ বা হলুদের যে কোনও শেড।