মেঘ না চাইতেই জিভে জিলিপি, তাও আবার মাংসের!

সুমেরু মুখোপাধ্যায়

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৯:০৯
শেষ আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৯:১২

ময়দা, কলাইয়ের ডাল, মুগের ডাল আর ছানার জিলিপি শুনলেও মাংসের জিলিপি শুনেছেন কখনও!


মন খারাপ করা বিকেল মানেই মেঘ করেছে মনে হতেও পারে কিন্তু প্যাচপ্যাচে কাদা জল ঠেঙিয়ে কোথায়ই বা যাবেন? বরং মেঘটাকে ভালবেসে ফেলুন। খিচুড়ি আর ইলিশ মাছ থাকলে ভাল। কিন্তু সে ভারি শর্টকাট। হোম অবশ্য সায়েন্স লেখে পাঠ্যসূচিতে তবে কর্মসূত্রে আর্ট। এমন দিনে ধরুন রান্নাই করলেন মন দিয়ে। প্রতিটা রান্নায় তিনটে অংশ। প্রিপ্রোডাকশন, প্রোডাকশন ও সার্ভিং।

ভাবনার অংশটা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ। কী রাঁধবেন কেন রাঁধবেন টাইপ। সেখান থেকেই আসে বাজার, কোন বাজারে যাবেন, ঠিক কী কিনবেন। কিসের সঙ্গে কী তরকারি দেবেন, কেমন আকারে কাটা হবে সব ভাবনা আগেই ভেবে ফলতে হবে। মনে মেঘের ছোঁয়াচ লেগে সমস্ত কিছু গুলিয়ে যাওয়ার আগে রান্নাটা সেরে ফেলুন।

জিলিপি যে সর্বদা রসেই ফেলতে হবে এমন কথা কেউ বলেনি। কেউ খান গরম দুধে, কিউ ঠান্ডা দই বা রাবড়িতে মাখিয়ে। সাউথ এশিয়ার সমস্ত দেশে এর কদর বিরাট। মিডল ইস্টে নানা যুগে যুগে তিনি আবির্ভূত। আর্য-অনার্য এক জিলিপিতে হল লীন। ভারত-পাকিস্থানের সন্ধিও এই জিলিপিতে। ‘হবসন-জনসন’-এর লেখা বাইবেল অনুসারে টার্কি থেকে পারস্যে জিলিপির আগমন পনেরোশো শতকে, তাদের সঙ্গে ভারতে এল মহামান্য জিলিপি। এর পর শুরু হল পরীক্ষানিরীক্ষা। কখনও ছেতরে গেল, কখনও উতরে গেল। মোটামুটি ময়দা, কলাইয়ের ডাল, মুগের ডাল আর ছানার জিলিপি শুনলেও মাংসের জিলিপি শুনেছেন কখনও!

আরও পড়ুন: পেঁয়াজ-রসুন ছাড়াই বানিয়ে ফেলুন এই কাশ্মীরি মাটন রেসিপি!

না, এটা মিষ্টি নয়। রীতিমতো টক ঝাল নোনতা হৃদয়বিদারক জিলিপি এবং তা বানানো হবে মাটন কিমা দিয়ে। এই জিলিপি ভাজা খাওয়া যায় শুধু মুখে অথবা ঘন ঝোল রান্নাও করে ফেলা যায় ভাতের সঙ্গে। ঝোল খেলে মাংসের জিলিপি ঝোলে দেবেন কিন্তু পরিবেশন করার আগের মুহূর্তে বন্ধ করুন আঁচ। তবে এই পদ শুধুমুখেই জমে ভাল। সঙ্গে মেঘলা দিনের চা-কফি সঙ্গদী হলেও ক্ষতি নেই। কিন্তু মাংসের জিলিপি ভাজবেন কেমনে?

মাংসের জিলিপি

উপকরণ

বিউলির ডাল: ৫০০ গ্রা

চালের গুঁড়ো: ২০০ গ্রা

মাটন কিমা: ৫০০ গ্রা

পিঁয়াজ: ৩০০ গ্রা

রসুন কুচি: ২০ কোয়া

আদা বাটা: ২ টেবিল চামচ

জোয়ান: এক টেবিল চামচ

বেকিং পাউডার: এক টেবিল চামচ

গোলমরিচের গুঁড়ো: এক টেবিল চামচ

দারচিনি: পাঁচটি (ঝোল হলে)

পাতি লেবুর রস: দুই টেবিল চামচ

নুন: আন্দাজ মতো

সাদা তেল: ৫০০ মিলি

প্রণালী

বিউলির ডাল আগের দিন ভিজিয়ে রাখুন। মিক্সিতে বাটলে কিন্তু আলাদা জল দেবেন না। মাংসের কিমা নুন, লেবুর রস ও আদাবাটা দিয়ে প্রেসার কুকারে সিদ্ধ করে রাখুন। এ বার পিঁয়াজ খুব মিহি কুচি, রসুন কুচি, গোলমরিচ গুঁড়ো ও বেকিং পাউডার দিয়ে ডাল ও কিমা ভাল করে মেশান। চালের গুঁড়ো হাতে রাখবেন, আগে মিশিয়ে দেবেন না। মণ্ড শক্ত করতে কাজে লাগবে। খুব শক্ত হলেও কিন্তু চলবে না কিন্তু। নরম করতে হলে তেল বা সামান্য জল দিতে পারেন। শক্ত করে নিয়ে কোণে বা ফানেলে করে গরম তেলের উপর আঁকিবুকি টানুন। দুই পিঠ উলটে কড়া করে ভেজে তুলুন মাংসের জিলিপি।

আরও পড়ুন: বাঁশের ভিতর ফুটছে মাংস মেশানো ভাত! রেসিপি?

চালের গুঁড়ো থাকায় বেশ মুচমুচে হবে খেতে। শারদপ্রাতে মেঘের ঘনঘটা দেখে মন খারাপ করবেন না। শুধু প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি কিনে ফেলুন সকাল সকাল। আর এই জিলিপি আড়াই প্যাঁচে শেষ করতে হবে এমন কোনও মানে নেই। বরং অতিথি এমন জিলিপির প্যাঁচে পড়ে কেমন সমালোচনা করেন, সে টুকু তুলে রেখে দিন মনের কুলুঙ্গিতে।