পাবদা বাসন্তী থেকে চাইনিজ-কন্টিনেন্টাল, উত্তরের এ রেস্তরাঁয় বিপুল আয়োজন

রোশনি কুহু চক্রবর্তী

১২ অক্টোবর, ২০২০, ১৩:৪১
শেষ আপডেট: ১২ অক্টোবর, ২০২০, ১৪:০৭

শেফ দেবজিৎ মজুমদার বলেন, নানা রকম বাঙালি রান্না থাকবে এই রেস্তরাঁয়। প্রতিটিতেই রয়েছে অভিনবত্ব।


উত্তর কলকাতায় খাদ্যরসিকদের কথা ভেবে নানা পদের পসরা সাজিয়ে ফেলেছে একটি রেস্তরাঁ। না, শুধু উত্তর কেন শহরের যে কোনও প্রান্তের যে কোনও মানুষের পছন্দের খাবার মিলতে পারে এখানে। গত চার বছর ধরে এই রেস্তরাঁয় ভিড় জমাচ্ছেন ভোজন রসিকরা।

জাম্বো পমফ্রেট ফ্রাই, ক্রিম অব চিকেন সুপ, ভেজিটেবল ডিম সাম, রেড হট ড্রাম স্টিক, চিলি গার্লিক শ্রেডেড ল্যাম্ব, মাহি কালি মির্চ টিক্কা, কুম্ভ কালি মির্চ, চিজ আলফ্রেডো প্রন কিংবা বাটার নান সহযোগে মটকা গোস্ত, এ রকম হাজারো পদের আয়োজন রয়েছে দমদমের এই রেস্তরাঁয়।

কেউ পছন্দ করেন খাঁটি এশীয় পদ, কারও পছন্দ হালকা কন্টিনেন্টাল। কেউ বা চাইনিজ। কারও পছন্দ তন্দুর। অনেকেই আবার পুজোর সময় খাঁটি বাঙালি রান্না খেতে আগ্রহী। সবকিছু মিলবে এক ছাদের তলায় এখানকার হেঁসেলেই। পুজোর সময় বাঙালি পদের বিশেষ আয়োজনের কথা জানালেন এই রেস্তরাঁর কনসালট্যান্ট শেফ। কিন্তু উত্তরের কোথায় এই রেস্তরাঁ?

আরও পড়ুন: ৭০০ বছরের পুরনো পদে বাঙালি ফিউশন, লাসানিয়া প্রন উইথ চিজি পেস্তো ধনিয়া সস

পাতে থাকুক লা জবাব আমতেল পমফ্রেট। 

দমদমের নাগেরবাজারের বড় শপিং মলের ষষ্ঠ তলেই রয়েছে ‘রেড কিচেন অ্যান্ড লাউঞ্জ’। পুজোর আগে বিশেষ সাজে সেজে উঠছে এই রেস্তরাঁ। থাকছে পুজো স্পেশাল নানা মেনুও। আনন্দবাজার ডিজিটালের পাঠকদের জন্য সেই মেনু ফাঁস করলেন কনসালট্যান্ট শেফ দেবজিৎ মজুমদার। দেবজিৎবাবু বলেন, নানা রকম বাঙালি রান্না থাকবে এই রেস্তরাঁয়। প্রতিটিতেই রয়েছে অভিনবত্ব।

কী কী থাকছে?

লঙ্কা মরিচ পোড়া ভেটকি

গোটা মশলা মুরগি

পাবদা বাসন্তী

চড়ুইভাতির কষা মাংস

চিংড়ি মালাইকারি

তালিকায় আছে সুস্বাদু আহ্লাদি মুরগি।

এ বারের পুজো খানিকটা অন্যরকম। তাই সবরকম সাবধানতা অবলম্বন করেই রান্না করা হচ্ছে। পরিবেশনও করা হচ্ছে। রেস্তরাঁয় প্রবেশের আগেই হাতে স্যানিটাইজার দেওয়া, থার্মাল গান দিয়ে তাপমাত্রা মেপে নেওয়ার বিষয়টি রয়েছে। সবরকম সুরক্ষাই মেনে চলা হচ্ছে। 

আরও পড়ুন:  দেশীয় ফিউশনে ‘এডিবল আর্ট’, পছন্দের নিরামিষ খেতে আসতেই হবে ‘গ্রেস’-এ

পুজোর সময় বাড়িতে রান্না করতে কারই বা ভাল লাগে, তাই সময় পেলে এসেই দেখুন।চাইলে অ্যাপের মাধ্যমে বাড়িতে বসে অর্ডার করতেও পারেন। ‘রেড কিচেন অ্যান্ড লাউঞ্জ’-এর শেফ শঙ্কর শ্রীনিবাস জানালেন, অন্য স্বাদের বাঙালি পদ কিংবা অভিনব চাইনিজ খেতে চাইলে এ রেস্তরাঁয় আসতেই হবে। আর কয়েকদিন পরেই তো ষষ্ঠী। জমে উঠুক পুজোর ভোজ।

ছবি সৌজন্য: রেড কিচেন অ্যান্ড লাউঞ্জ