এ বার পুজোয় চমক দিন, উপহার দিন এই ভাবে

মনীষা মুখোপাধ্যায়

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১৪:৪৯
শেষ আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:৫০

উপহারে চমক থাকবে আবার পকেটে পড়বে না বাড়তি চাপ। শুধু তা-ই নয়, উপহার হতে হবে যুগোপযোগীও।


পুজো আসতে আর হাতে গোনা ক’দিন। এখন থেকেই বাঙালির ঢুঁ মারা শুরু দোকানে দোকানে। পুজো মানেই বাঙালির কাছে ‘স্পেশাল ডেজ’! তাই এই উপলক্ষে প্রিয়জনের জন্য কেনাকাটা করতে আর যেন তর সয় না বাঙালির। কিন্তু স্রেফ কেনাকাটা করব বললেই তো হল না, আত্মীয়-পরিজনের মুখে হাসি ফোটাতে হলে দিতে হবে তেমন ধাঁচের উপহার।

উপহারে চমক থাকবে আবার পকেটে পড়বে না বাড়তি চাপ। শুধু তা-ই নয়, উপহার হতে হবে যুগোপযোগীও। এত কিছু মেনে কী উপহার কিনবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তা করছেন? উপহার কেনা নিয়ে মেনে চলুন এ সব পরামর্শ। চিরাচরিত পোশাক দেওয়ার ট্রেন্ড থেকে বেরিয়ে গড়ে তুলুন নিজস্ব গিফ্‌ট ট্রেন্ড। যা পেয়ে চমকে যাবেন প্রিয়জনরা! আপনার জন্য রইল কিছু অফবিট উপহারের তালিকা।

আরও পড়ুন: এ বার পুজোয় অফবিট উপহারে বাজিমাত করুন, দেখে নিন কার জন্য কী কী

অফবিটে কেল্লা ফতে

বাবা-মা কিংবা শ্বশুর-শাশুড়ির জন্য এ বার একটু অন্য ভাবে ভাবুন। অনেক দিন বাড়িবন্দি কি তাঁরা? যদি শক্ত-সমর্থ থাকেন, তা হলে বরং এই পুজোয় কোথাও বেড়াতে যাওয়ার টিকিট কেটে দিন তাঁদের। হোটেল বুকিং থেকে পুরো ট্যুর প্যাকেজটাই এ বার উপহার দিন তাঁদের। খুশি হবেন নিশ্চিত।

ননদ কি সাজগোজ করতে ভালবাসেন? তা হলে পুজোর আগে স্পা-প্যাকেজ বুক করে দিন কিংবা মেক আপ কিট কিনে দিন। পুজোর উপহার হিসেবে এর থেকে চমকের আর কিছু হয় না!

বোন ভালবাসে বই পড়তে? বেশ তো, নামী কোনও বুকস্টোরের বই পড়ার জন্য গিফট কুপন দেওয়া হয়। তেমন কোনও কুপন উপহার দিন এই পুজোয়। বইপ্রেমীরা খুশি হবেনই।

ভাসুর, দেওর বা ভাইয়ের জন্য কিনতেই পারেন নামী ব্র্যান্ডের শেভিং কিট। পুজোর সময় একটু সাজগোজ করতে সকলেরই তো মন চায়!

বর খুব টেকস্যাভি? তা হলে জামা-কাপড়ের বদলে তাঁর প্রয়োজন অনুযায়ী সফ্‌টওয়্যার পুজোর উপহার হিসেবে দেওয়া যেতে পারে। আপনি চাকুরিরতা হলে বরের নামে শুরু করতে পারেন নতুন কোনও বিমা।

আরও পড়ুন: প্যান্ডেল হপিংয়ের মাঝে ঝেঁপে বৃষ্টি, কী করবেন, কী করবেন না

আরও পড়ুন: বয়স্কদের ঘর দিয়ে শুরু হোক সেজে ওঠার পালা​

প্রবাসী আত্মীয় বহু বছর পরে বাড়ি ফিরছেন। তা হলে তাঁর উপহারে রাখুন নির্মল আনন্দের ছোঁয়া।

পুজো ভ্রমণের জন্য এসি ভলভো বাস-এর টিকিট কেটে দিন। কলকাতার বিখ্যাত পুজো মণ্ডপে ঘোরার জন্য সরকারের তরফেও নানা প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়। তেমন কিছুর টিকিট বুক করে দিন তাঁকে। অথবা বুক করে দিতে পারেন কোনও বনেদি বাড়ির পুজো ঘোরার সরকারি পাস। তাঁর স্মৃতিতে আজীবন থাকবে এমন উপহার।

বউ কি শাড়ি উপহার পেতে পেতে ক্লান্ত? তা হলে এ বার তাঁকে একটু চমকে দিন। তাঁর নামে গোল্ড সার্টিফিকেট কিনে ফেলুন একটা। কিংবা এই পুজোয় তাঁর নামে নতুন করে একটা জীবনবিমাও শুরু করতে পারেন।

আরও পড়ুন: ঘরের রং হোক শরতের আকাশের মতো মন ভাল করা

মেয়ে হোক বা বউমা— অফিস যাওয়ার আগে রান্নার হুড়োহুড়ি সামলে তিনি কি ভাল করে খাওয়ারও সময় পান না? তা হলে তাঁর জন্য এ বার কিছু কুকিং অ্যাপ্লায়েন্স কিনে দিন না। স্যান্ডউইচ মেকারে করা স্যান্ডউইচ বা রাইস কুকারের ভাত— সব মিলিয়ে তাঁরও কাজের ভার কমিয়ে দিন এ বারের পুজোর উপহারে।

ছেলে বা জামাই যদি স্টাইল স্টেটমেন্টে বিশ্বাস করেন, তবে তাঁকে কিনে দিন দারুণ দেখতে একটা সানগ্লাস। তা হলে পুজোর সকাল জমে যাবে।