পুজোয় লাগাতার মেক আপ? ত্বক বাঁচাতে এ সব মানুন এখন থেকেই

সুজাতা মুখোপাধ্যায়

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৮:৩৪
শেষ আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৪:৪৪

ত্বকের ক্ষতি রুখতে মেনে চলুন এইসব পদ্ধতি...


ফেসিয়াল, বডি পলিশিং, স্পা। নিশ্চয়ই সারা হয়ে গিয়েছে এত দিনে৷ ত্বকও জেল্লা দিতে শুরু করেছে প্রচুর৷ প্রস্তুত হয়ে আছে মেক আপ বাক্স৷ পুজোর মেজাজে সাজগোজের দিকেই মূল ফোকাস এখন। তবে তার আগে ত্বকের শত্রুদের একটু ভাল করে চিনে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে বইকি৷ না হলে পুজো শেষ হতে হতে, ত্বকের ক্ষতিও কেউ রুখতে পারবে না।

 

ত্বকের প্রধান শত্রু রোদ৷ এ ক’দিন তো আর ঘরে বসে থাকবেন না, একটু হলেও রোদে–জলে ঘুরবেন, তাতে রং তো কালো হবেই, বাড়াবাড়ি হলে সান অ্যালার্জিও হতে পারে৷ রোদে ঘোরার অভ্যাস না থাকলে একটু বেশিই হবে৷ তা ছাড়া, রোদ এড়ানোর পন্থা জানা না থাকলে ত্বকে কালো ছোপ ও বলিরেখা পড়ে যেতে পারে সময়ের আগেই৷

 

ত্বকের দ্বিতীয় শত্রু মেক আপ৷ যে প্রসাধনীতে অ্যালার্জি আছে তা থেকে যথাসম্ভব দূরে থাকতে না পারলে নিমেষে বিপদ ঘটতে পারে, যা সামলাতে পরে বিস্তর কাঠখড় পোড়াতে হবে৷ সমস্যা হতে পারে লাগাতার মেক আপ করে থাকলেও৷

আরও পড়ুন:শিশুকে সঙ্গে নিয়েই ঠাকুর দেখার প্ল্যান? অবশ্যই মেনে চলুন এ সব​

 

তৃতীয় সমস্যা ত্বকের অযত্ন৷ যে তালিকায় আছে ভুলভাল খাবার, কম ঘুম, ত্বক পরিষ্কার করে ময়েশ্চারাইজ না করার অভ্যাস৷ কাজেই সাজগোজের পাশাপাশি কীভাবে ত্বকের পরিচর্যা করবেন তা দেখে নিন৷

ত্বকের পরিচর্যা

  • সকালে বা দুপুরে ঠাকুর দেখতে বেরলে চোখে বড় সানগ্লাস পরুন৷ বাহারি টুপি পরুন মাথায়৷ হাত–পা ঢাকা পোশাক ও পা ঢ়াকা জুতো পরে নিন৷

  • ভিটামিন ই ক্যাপসুল ভিতর থেকে রোদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে৷ কাজেই এখন থেকেই নিয়মিত খেতে পারেন৷

  • বেরনোর মিনিট ২০ আগে ৫০–৬০ এসপিএফ–এর সানস্ক্রিন লাগান পুরু করে৷ মেক আপ যা করার তা করুন এর উপরে৷ পাহাড়ে বা সমুদ্রে বেড়াতে গেলে আরও বেশি এসপিএফ লাগতে পারে৷ সে ক্ষেত্রে ক্যালামাইন ও সানস্ক্রিন মিশিয়ে মাখতে পারেন৷ উপরে পাউডার লাগালে আরও ভাল কাজ হবে৷

  • সানস্ক্রিনের কার্যকারিতা মোটামুটি ঘণ্টা তিনেক থাকে৷ তার মধ্যে বাড়ি চলে এলে সবচেয়ে ভাল৷ সারা দিনে বার তিনেক লাগাতে হবে৷ ঘরে থাকলেও৷

​​​​

আরও পড়ুন:পুজোর অনিয়মে বাড়তে পারে কোমরের মেদ, এ সব মানলে সে ভয় নেই​

  • রোদে ত্বক পুড়ে গেলে বা অ্যালার্জি হলে সোপ ফ্রি সোপ দিয়ে মুখ ধুয়ে ক্যালামাইন লোশন লাগান৷ দিনে দু’–তিন বার৷ বাড়াবাড়ি অ্যালার্জি হলে কিছু অ্যান্টিঅ্যালার্জিক খেতে হতে পারে৷ সে অবস্থায় মুখে কোনও রকম মেক আপ করবেন না৷

  • এ সময় থেকেই ত্বকে শীতের রুক্ষ টান শুরু হয়৷ অতএব ময়েশ্চারাইজার লাগান৷

  • রাতে শোওয়ার আগে ভাল করে মেক আপ তুলে ক্রিম বা ময়েশ্চারাইজার লাগান৷

  • নতুন মেক আপ ব্যবহার করার আগে দেখে নিন কোনও সমস্যা হচ্ছে কিনা৷ লাগানোর পর চুলকানি হলে, ফুসকুরি উঠলে বা জায়গাটা লাল হয়ে গেলে মেক আপ তুলে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন৷ যাতে আগে অ্যালার্জি হত না, তাতেও হঠাৎ করে হয়ে যেতে পারে৷ সতর্ক থাকবেন৷

  • পর্যাপ্ত জল ও শাক–সব্জি–ফল–প্রো খাবার খান৷ স্বাস্থ্য ও ত্বক ভাল থাকবে৷

  • মদ এড়িয়ে চলুন। দূর করতে হবে ঘন ঘন লেট নাইটের নেশাও। কোনও দিন তেমনটা হয়ে গেলেও পর দিন ভাল করে ঘুমিয়ে নিন৷ জল একটু বেশি করেই খান৷

  • স্ট্রেস থেকেও ত্বকের ক্ষতি হয়৷ অতএব আনন্দের চোটে লাগামহারা হইচই নয়৷