হ্যাভেলস-এর সঙ্গে পুজো হয়ে উঠবে আরও সুন্দর

নিজস্ব প্রতিবেদন

১০ অক্টোবর, ২০১৯, ১৫:৪৭
শেষ আপডেট: ১০ অক্টোবর, ২০১৯, ১৫:৫৯

পুজোর আগে হ্যাভেলসের সঙ্গে নিজের বাড়িকে সাজিয়ে তুলুন একদম পুজোর মেজাজে।


আপনি যদি তাঁদের মধ্যে একজন হন, যাঁরা শুধুমাত্র একটা কাঠি রোলের জন্য কয়েক মাইল হেঁটে যেতে পারেন, রাতের পর রাত জেগে থেকে ঠাকুর দেখতে পারেন কিংবা কানের  সামনে ঢাকের শব্দ শুনে বাচ্চাদের মতো ঘুমিয়ে পড়তে পারেন — তাহলে শহর কলকাতার এই সময়টা আপনার জন্যই। কারণ শহরে পুজোর মরসুম। কলকাতার বাইরে থাকলে আজই পা রাখুন শহরে আর সাক্ষী থাকুন দুর্গা পুজোর এক অভূতপূর্ব অভিজ্ঞতার।

শহরে প্রান্ত থেকে ভেসে আসা ঢাকের শব্দের সঙ্গে মিলে যাওয়া ট্রাফিকের আওয়াজ। আলোয় আলোয় ভেসে যাওয়া প্রতিটা অলি-গলি। শহর কলকাতায় দুর্গাপুজো মানে শুধু মাতৃ-আরাধনাই নয়, তার থেকে অনেক বেশি কিছু। এই পুজো যেন জীবনের উদযাপন, এই পুজো শহরের পরতে লেগে থাকা শিল্প। আরও ভালভাবে বলতে গেলে, দুর্গাপুজো আসলে বাঙালিদের কাছে একটা আবেগ।

এই পুজো মানেই চুটিয়ে ঠাকুর দেখা, ঘোরা আর দেদার আড্ডা। আর এই পুজোর মূল আকর্ষণ হল শহরের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মণ্ডপগুলি। যেখানে পুজোর পাঁচটা দিন নানা প্রান্তের মানুষ জমায়েত করে। নতুন  জামা, নতুন জুতো — প্রত্যেকের একটাই লক্ষ্য মায়ের আশীর্বাদ। প্রত্যেক বছর হাজার হাজার শিল্পী ছোট-বড় সব মিলিয়ে শহরের প্রায় ২০০০ মণ্ডপ তৈরি করে। যা এই পুজোকে বিশ্বের  অন্যতম সেরা স্ট্রিট-আর্ট ফেস্টিভালের অখ্যান দিয়েছে।

আর আপনার যদি ভিড় পছন্দ না হয়, কিংবা আপনি যদি শান্ত পরিবেশে নিজের মতো থাকতে পছন্দ করেন তা হলেও এই শহরের উৎসব আপনাকে ছাড়বে। কেন না এই শহরের বাতাসের প্রতিটা কোনায় ছড়িয়ে রয়েছে পুজোর মেজাজ। যা আপনাকেও যে কোনও ভাবে পুজোর আনন্দে মাতোয়ারা করে তুলবে। প্রয়োজনে এই পুজোর মরসুমে নিজের মনের মতো করে ঘর আলোকিত করে তুলুন হ্যাভেলসের অভিনব স্টেট-অব-দি-আর্ট প্রোডাক্টের সঙ্গে।

আর বাঙালির কাছে  তাঁদের শ্রেষ্ঠ উৎসব শুধুমাত্র দেবী আরাধনার মধ্যেই থেমে থাকে না। বাঙালির কাছে উৎসব মানেই সকলের এক জায়গায় একত্রিত হওয়া। এক কথায় যাকে বলে ফ্যামিলি মিটিং বা গেট টুগেদার। বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-পরিজন সকলে একত্রে মিলিত হয়ে পুজোর অনুভুতিকে, আবেগকে মিলিয়ে মিশিয়ে উপভোগ করার মজাটা বলে বোঝানো সম্ভব নয়। আর সেই কারণেই পুজোর এই আনন্দে নিজের সঙ্গে সঙ্গে নিজের ঘর-বাড়িকেও করে তুলুন আরও সুন্দর। 

আর তাই পুজোর আগে হ্যাভেলসের সঙ্গে নিজের বাড়িকে সাজিয়ে তুলুন একদম পুজোর মেজাজে। গ্য়াস-স্টোভ, চিমনি, মিক্সার-গ্রাইন্ডার, বা আভেনের মতো নুন্যতম কিছু অ্যাপ্লায়েন্সের সঙ্গে সাজিয়ে ফেলুন নিজের কিচেন।

যদি আপনার বাজেট কম থাকে আর কিচেনে ভাল টেকসই প্রোডাক্ট চান, তা হলে হ্যাভেলস-এর মতো ভাল ব্র্যান্ড বাজারে কমই রয়েছে। আর হ্যাভেলসের এক্সক্লুসিভ প্রোডাক্টগুলি আপনার ঘরকেও করে তুলবে আরও সুন্দর।

তা হলে আর অপেক্ষা কেন? হ্যাভেলসের সঙ্গে এই পুজো উদযাপন করুন আরও বড় করে। পুজোর প্রত্যেকটা দিন হোক সুন্দর। 

আপনাদের সকলকে শারদীয়ার প্রীতি, শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।