মেদ ঝরাতে সাপ্লিমেন্ট নয়, ভরসা রাখুন ব্যায়ামেই!

চিন্ময় রায়

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১৫:০৯
শেষ আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:৩৩

পুজোর মুখে শরীর বানাতে তাড়াহুড়ো নয়। পরামর্শ দিচ্ছেন ফিটনেস বিশেষজ্ঞ।


১৯৩২ সালে জনি ওয়েজমুলার টারজান দ্য এপ ম্যানছবিটা করেছিলেন। টারজানের চেহারা মানে বুঝতেই পারছেন, এখনকার হৃতিক রোশনের মতো। কিন্তু ওই চেহারা বানাতে জনি ওয়েজমুলারের ভরসা ছিল ব্যায়াম। সঙ্গে ডিম, মুরগি আর দুধ। স্টেরয়েড, প্রোটিন সাপ্লিমেন্টের মুখ দুনিয়া তখনও দেখেনি। ১৯৫০-এর হলিউডের নায়ক মার্লন ব্র্যান্ডো বা ১৯৭০-এর  মার্শাল আর্টের সুপারস্টার ব্রুস লি, কেউই রাসায়নিকের বরে সিক্স প্যাক বানাননি। অভিনেত্রী-গায়িকা মেরিলিন মনরোও ফ্যাট বার্নারের জাদুতে নিজের ছিপছিপে চেহারা ধরে রেখেছিলেন এমনটা নয়। সে ক্ষেত্রেও ব্যায়ামই ছিল মোক্ষম দাওয়াই।

সাবধান: ভুতের রাজার বরের মতো সাপ্লিমেন্টের বরে ডব্লিউ ডব্লিউ এফের কুস্তিুগিরদের বাহুবলী রূপ ধারণ কেটু (K2) শৃঙ্গে অভিযানের সমান। ক্ষণিকেই এই শৃঙ্গের তুষারঝঞ্ঝার তাণ্ডব পর্বতারোহীর মৃত্যু ঘটাতে পারে। মাত্র ৩৮ বছরে বয়সে অ্যাথলিট ফ্লোরেন্স জয়নারের মৃত্যুর জন্য দায়ী এই স্টেরয়েড।

মেয়েদের মধ্যে ফ্যাট বার্নার হিসেবে নামকরা সংস্থার নিউট্রিলাইট খেয়ে ওজন কমানোর বেশ প্রবণতা রয়েছে। ফলস্বরূপ মাথা ধরা, হজমের সমস্যা, অনিদ্রা তাদের নিত্যসঙ্গী। বাইরে দেখাচ্ছে ছিপছিপে সুন্দর চেহারা অথচ ভিতরটা জ্বলে যাচ্ছে। বলিউডের নায়িকারা সবসময় পর্দায় নিজের চাকচিক্যময় রূপ ধরে রাখতে চান। শ্রীদেবী ৫৪ বছর বয়সেও নিজের ২৪-এর মনোমুগ্ধকর রূপটাই ধরে রাখতে চেয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: পুজোর আগে এই ডায়েট মেনে চলুন! তা হলেই পাবেন নজরকাড়া ফিটনেস!

অবিলম্বে মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে হবে: সাপ্লিমেন্ট ব্যবহারের প্রধান কারণ ধৈর্যের অভাব। এখন মানুষ চাইছে ফেভিকুইকের মতো তাত্ক্ষণিক ফল। স্মার্টফোনের টাচ্ স্ক্রিনে আঙুল ছোঁয়ালেই এখন দুনিয়া হাতের মুঠোয়। সাপ্লিমেন্ট নিলেই যখন এক মাসে বুকের ছাতি ৩২ ইঞ্চি থেকে বেড়ে ৩৬ ইঞ্চি হচ্ছে তখন আর ব্যায়াম করার প্রয়োজন কী?

p>সত্যের সন্ধান: বিভিন্ন সংস্থা দাবি করে তাদের সাপ্লিমেন্ট খেলেই আপনার পেশি বাড়বে, সঙ্গে ওজনও কমবে। ঠিক যেমনটা অ্যান্টিবায়োটিক খেলেই ব্যাক্টেরিয়া মরবে নিশ্চিত। গবেষণায় প্রমাণিত, দু’-একটা আন্তর্জাতিক সংস্থা বাদে শতকরা ৯০ শতাংশ সাপ্লিমেন্ট স‌ংস্থার দাবি একেবারেই ঠিক নয়। ইন্টারনেটে ‘মায়োক্লিনিক’ ও ‘মেডস্কেপ’ বেশ বিশ্বাসযোগ্য ওয়েবসাইট, ওখানেই যাচাই করে নিতে পারেন আসল সত্যিটা।

 

প্রোটিনের লক্ষ্মণরেখা: নিজের শরীরের প্রতি কেজি ওজনের জন্য দরকার .৮০ গ্রাম প্রোটিন। অতিরিক্ত শরীরচর্চার মধ্যে থাকলে প্রোটিনের পরিমাণ ১.৫০ গ্রাম পর্যন্ত বাড়াতে পারেন। অতিমাত্রার অ্যামিনো অ্যাসিড রেচন করার জন্য কিডনিকে বেশি কাজ করতে হয়। ফলে রক্তের চাপ বৃদ্ধি পায়। হতে পারে কিডনির সমস্যা। অনেকে আবার ট্যাবলেট বা ইনজেকশনের আকারে স্টেরয়েড নিয়ে ‘গজনি’-র আমির খান হতে চান। কিন্তু অদূর ভবিষ্যতে এই দাওয়াই আপনার লিভার ও হার্টের ভয়ানক ক্ষতি করবে, সঙ্গে এনে দেবে বন্ধ্যাত্ব।

আরও পড়ুন: মেদ ঝরাতে ভরসা এই চার কসরত!

জানেন কি, সাপ্লিমেন্ট খেলে হতে পারে এই বিপদ

  • শেয়ার বাজারে ফাটকা খেলার মতো স্টেরয়েড-সাপ্লিমেন্টে পয়সা ঢালবেন? ‘বাই ওয়ান গেট ওয়ান’ অফারের মতো পেশি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এ ক্ষেত্রে শরীরে দেখা মিলবে একাধিক রোগের লক্ষ্মণ। সাপ্লিমেন্ট বন্ধ করলে শরীর আবার আগের অবস্থায়! অযথা জলে যাবে আপনার পরিশ্রমের টাকা।

  • ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক উপায়ে। ব্যায়ামের পাশাপাশি সঠিক ডায়েট মেনে চললে পেশি বাড়তে বেশ খানিকটা সময় লাগবে। মেদ ঝরিয়ে রোগা হতে ধৈর্য ধরতে হবে। তবে এই উপায়টি ফিক্স ডিপোজিটের মতোই নিরাপদ। ‘লং টাইম গেইন’ আর ‘নো সাইড এফেক্ট’!

পেশির জন্য: পেশির নজরকাড়া বৃদ্ধি ঘটাতে পারে ‘বডি পার্ট ব্যায়াম’ এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার। জেনে নিন এই ‘বডি পার্ট ব্যায়াম’ আসলে কী? এক দিন বুকের ট্রাইসেপ, পরের দিন ব্যাকের বাইসেপ এবং তৃতীয় দিন পায়ের ব্যায়াম। এই পর্যায়ক্রম মেনে চললেই সম্পূর্ণ হবে আপনার ‘বডি পার্ট ব্যায়াম’। এক দিনে প্রতি বডি পার্টের চারটি করে ব্যায়াম করুন।

বুকের ব্যায়াম: ১.পুশ-আপ, ২. চেস্ট প্রেস, ৩. ফ্লাই, ৪.পুলওভার

ব্যাকের ব্যায়াম: ১. পুল আপ, ২. সিটেড রো, ৩. লাট পুল, ৪. স্ট্যান্ডিং রো

বারো বার করে চারটি সেট করুন। সময়ের সঙ্গে পুনরাবৃত্তি বাড়ান, ব্যায়ামকে কঠিন করুন।

খাদ্যবিধি:

  • নিজের শরীর বুঝে ৪-৮টা ডিমের সাদা অংশ

  • ২০০ গ্রাম মুরগির মাংস

  • ২ গ্লাস দুধ

  • ১-২ মুঠো ভেজানো ছোলা

  • ৬-৮টা আলমন্ড

  • ৪টে আখরোট

আরও পড়ুন: পুজোর কেনাকাটায় ভুলেও জুতোকে অবহেলা করবেন না​

রোগা হওয়ার সহজ উপায়এক্সারসাইজে ক্যালোরি খরচ ও দৈনিক খাবারে ক্যালোরির ঘাটতি, এই মন্ত্রেই রোগা হতে পারবেন আপনি। রোগা হওয়ার জন্য দৌড়ঝাপের কার্ডিও মহিলাদের বিশেষ পছন্দের। ওজন নিয়ে ৫-৬টা ব্যায়াম আর কয়েকটা কার্ডিও করলেই মিলবে আপনার মনের মতো ছিপছিপে শরীর।

  • প্ল্যাঙ্ক জ্যাক (৩০-৪০ বার পুনরাবৃত্তি) ও প্ল্যাঙ্ক (৩০-৪০ সেকেন্ড)
  • স্পট হাই নি (৩০-৪০ বার পুনরাবৃত্তি) ও সাইড প্ল্যাঙ্ক (৩০-৪০ বার পুনরাবৃত্তি)

দুটো ব্যায়ামই ৪-৫টি সেটে করুন। সময়ের সঙ্গে পুনরাবৃত্তি বাড়ান।

খাদ্যবিধি:

  • দিনে ৬-৭ বার খাবার খান।

  • ভরপেট খাবার কখনও খাবেন না। খাবারের তালিকায় সুপ, ডাল, স্কিমড দুধ জাতীয় তরল রাখুন যাতে অল্প খেলেও পেট ভরা মনে হয়।

  • আপেল, পেঁপে, আঙুর, মুসুম্বি জাতীয় রসালো ফল রাখুন আপনার খাদ্য তালিকায়।

  • সারা দিনের খাবারে ৫০ শতাংশ কমপ্লেক্স কার্ব, যেমন ওটস্, আটার রুটি, ভাত রাখুন।

  • অবশ্যই ডায়েটে রাখুন ৪০ শতাংশ প্রোটিন। যেমন মাছ, চিকেন, ডিমের সাদা অংশ।

  • এ ছাড়া রাখবেন ১০ শতাংশ ফ্যাট, যেমন পিনাট বাটার, আমন্ড ও অলিভ অয়েল।

নিজেকে ভাল দেখানোর বাসনা জাগলে ব্যায়াম করার বাসনাও জাগাতে হবে। হ্যাঁ! একদম ঠিকই পড়ছেন। এ ছাড়া সত্যিই কোনও গতি নেই। এক্সারসাইজ অনেকটা দাবা খেলার মতো। ধৈর্য আর বুদ্ধি ধরে খেলতে হবে। তবেই হবে কিস্তিমাত!