পার্লারে যেতে ভয়? ঘরোয়া এই টোটকায় জেল্লাদার আপনি

নিজস্ব প্রতিবেদন

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৩:১৭
শেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৩:২৮

ত্বককে উজ্জ্বল করতে, র‌্যাশ-ব্রণর সমস্যা দূর করতে হলুদ সব সময়ই বড় ভরসা।


পার্লারে ভিড় জমাতে ভয় লাগছে এ বার। খরচ তো হয়,তার উপর নানা রকম রাসায়নিকের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ত্বকের ক্ষতি হয়। সঙ্গে জুড়েছে করোনা জুজু। অথচ উপায় জানলে সামান্য কয়েকটি ঘরোয়া উপাদান দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন এমন কিছু ফেসপ্যাক, যা ত্বককে সতেজ করে তোলার পাশাপাশি উজ্জ্বলও করে তুলবে। প্রাচীন এই টোটকাই কাজে লাগান এ বারের পুজোয়।

ত্বকের পরিচর্যায় হলুদ প্রাচীন কাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ত্বককে উজ্জ্বল করতে, র‌্যাশ-ব্রণর সমস্যা দূর করতে হলুদ সব সময়ই বড় ভরসা। নমনীয় ও মসৃণ ত্বক পেতে ভরসা রাখতে পারেন হলুদেই।

রইল উপায়

হলুদ এবং দইয়ের প্যাক: ১/৪ চামচ হলুদ গুঁড়ো, চার চামচ টক দই মিশিয়ে নিলেই এই ফেসপ্যাক তৈরি। প্রথমে ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে প্যাকটি আলতো হাতে সারা মুখে লাগিয়ে দশ থেকে পনেরো মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দই ত্বকের দাগ দূর করে। হলুদের অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল উপাদান ত্বকের ব্রণ হওয়ার প্রবণতা হ্রাস করে। দইয়ে উপস্থিত প্রোটিন ও ভিটামিন ত্বকের মৃত কোষকে দূর করে, ত্বককে কোমল করে তোলে। রোদে পোড়া দাগ অর্থাৎ সানট্যান তুলতে এই প্যাক কার্যকর। এটি স্ক্রাবার হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন।

আরও পড়ুন: উৎসবের মরসুমে তরতাজা থাকতে রাখুন এই সব এসেনশিয়াল অয়েল

নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়।

হলুদ, লেবুর রস এবং মধু: লেবুর রস ত্বকের কালো দাগ, ব্রণর দাগ দূর করতে সাহায্য করে। ত্বকের রোমকূপ সংকুচিত করে থাকে। মধু আবার প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার। শুধু তাই নয়, মধু ত্বকে জলের ভারসাম্য বজায় রেখে ব্রণ হওয়ার প্রবণতাও রোধ করে। ১/৪ চা চামচ হলুদের গুঁড়ো, ১ চা চামচ লেবুর রস এবং ১ টেবিল চামচ মধু একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি সপ্তাহে এক বার ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে।

হলুদ, বেসন এবং গোলাপ জলের প্যাক: বেসন ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে নিয়ে ত্বককে ব্যাকটিরিয়ামুক্ত রাখে। ফলে ব্রণর প্রবণতাও হ্রাস পায়। ১/৪ চামচ হলুদ গুঁড়ো, ২ টেবিল চামচ বেসন, আর খানিকটা গোলাপ জল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। প্যাকটি ব্যবহারের আগে ভাল করে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। তার পর এই পেস্টটি মুখে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। ফেসপ্যাকটি শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দু’বার এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে ত্বক উজ্জ্বল ও সতেজ হবে।

আরও পড়ুনঠোঁট হবে নরম, ত্বক থেকে চুল ঝকঝকে, এই ভেষজেই কামাল পুজোয়

মধু ত্বকে জলের ভারসাম্য রক্ষা করে।

হলুদ, মধু এবং দুধের প্যাক: ১/৪ চামচ হলুদ গুঁড়ো, এক চামচ মধু আর দু’চামচ কাঁচা দুধ মিশিয়ে নিলেই এই ফেসপ্যাক তৈরি। প্রথমে ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে প্যাকটি আলতো হাতে সারা মুখে লাগিয়ে দশ থেকে পনেরো মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। মধু ত্বকে জলের ভারসাম্য রক্ষা করে। এর সঙ্গে হলুদের অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল উপাদান ত্বকের ব্রণ হওয়ার প্রবণতা হ্রাস করে। দুধে প্রচুর পরিমাণ মিনারেল এবং ভিটামিন থাকায় তা ত্বকের মৃত কোষকে দূর করে, ত্বককে কোমল করে তোলে। এই ফেসপ্যাক ত্বকের বলিরেখা দূর করতে বিশেষ কার্যকর।

তা হলে দেরি কেন, এক চিমটে হলুদেই করুন বাজিমাত!