পুজোর সময় ত্বক খসখসে? কী কী মেনে চলতে হবে

রোশনি কুহু চক্রবর্তী

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৭:০০
শেষ আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৪:৪৫

হাতের উপরের অংশে ময়েশ্চারাইজার লাগাচ্ছেন, কিন্তু বাজুর অংশ কিংবা কনুই খসখসে হয়ে গিয়েছে, সে ক্ষেত্রে কী করবেন?


আনলক পর্ব শুরু হতেই ভিটামিন ডি-র জন্য ইদানিং একটু বেশি সময় ধরে রোদ পোহাতে চাইছেন অনেকেই। কারণ লকডাউনে দীর্ঘ সময় বাড়িতে ছিলেন বেশির ভাগ মানুষ। এর ফলে বাড়ছে ত্বকের নানা সমস্যা। বিশেষ করে, বাড়িতে বেশি থাকার ফলে ত্বকে খসখসে ভাবটা যেন আরও বেড়ে গিয়েছে। করোনা আবহ হলেও দুর্গাপুজো তো আসছে।

ত্বকের জেল্লা ফেরাতে কী কী করতে হবে? 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ভয়ে ঘন ঘন হাত ধোওয়া ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছি সকলে। স্যানিটাইজারের অতিরিক্ত ব্যবহার ত্বকের শুষ্কতার কারণ। তাই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে শুরু করুন নিয়মিত।

শুধু হাত-মুখ নয়, নজর দিতে হবে পায়ের দিকেও। ময়েশ্চারাইজার, ফুট ক্রিম লাগিয়ে নিন ঘুমতে যাওয়ার আগে। হাতের উপরের অংশে ময়েশ্চারাইজার লাগাচ্ছেন, কিন্তু বাজুর অংশ কিংবা কনুই খসখসে হয়ে গিয়েছে, সে ক্ষেত্রে কী করবেন?

আরও পড়ুন: লেবু জল, গ্রিন টি আর অঞ্জলি, মাতিয়ে দিন পুজো

ঘরোয়া পদ্ধতি

  • দুধের সর মুখে মাখার সঙ্গে সঙ্গে মাখতে পারেন হাতের উপরের অংশ কিংবা কনুইতেও।
  • স্ক্র্যাবার হিসেবে ব্যবহার করুন চিনি।
  • চিনি, কলার ফালি সম্পূর্ণ বডি স্ক্র্যাবার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: পুজোর সময় হার্ট ভাল রাখতে মেনে চলুন এই সব

ব্রণ কখনও খোঁটা বা হাত দেওয়া উচিত নয়। ফাইল চিত্র। 

কী কী খেয়াল রাখতে হবে ত্বকের জেল্লা ফিরে পেতে?

  • দিনে যত বার স্যানিটাইজ়ার ব্যবহার করছেন, অন্তত তার অর্ধেক বার ময়শ্চারাইজ়ার বা ক্রিম অবশ্যই লাগাবেন, এমনই মত ডার্মাটোলজিস্ট অরিত্র সরকারের। ময়েশ্চারাইজার কেনার সামর্থ না থাকলে নারকেল তেল অন্তত ব্যবহার করুন, পরামর্শ অরিত্রবাবুর।
  • স্যানিটাইজ়ার কেনার আগে তাতে অ্যালোভেরা জেল বা গ্লিসারিন আছে কি না, দেখে নিন। ক্ষতির হাত থেকে বাঁচবেন অনেকটাই।  
  • ঘুমতে যাওয়ার আগে হাতে ভাল করে হ্যান্ড ক্রিম মাসাজ করে নিন।
  • স্যানিটাইজ করার সঙ্গে সঙ্গে, হাত কখনও ঠোঁটে লাগাবেন না। ঠোঁট শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়। 

আরও পড়ুন: দু মাসে পাঁচ কেজি ওজন কমাতে চান? মেনে চলুন এই ডায়েট 

  • বার বার মুখ ধোওয়া জরুরি এখন। ঘুম থেকে উঠে বা সকালে স্নানের সময় জেল বা ফোম (বেশি তৈলাক্ত ত্বকের ক্ষেত্রে) ফেসওয়াশ দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। তার পর পিএইচ ব্যালান্স বজায় রাখে, এমন টোনার লাগাতে হবে। পরের ধাপে এমন ময়শ্চারাইজার জরুরি, যা ত্বকের জলীয় ভাব ধরে রাখে। ‘নন অ্যাকনেজেনিক’ ময়শ্চারাইজার লাগালেও ফল মিলবে।
  • আনলক পর্বে বাইরে বেরনোর সময় এসপিএফ যুক্ত প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে হবে পুরুষ-নারী প্রত্যেককেই। রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখ পরিষ্কার করে শুতে যাবেন। এতে ত্বকের শ্বাস নিতে সুবিধে হবে। ফলে ত্বক হবে আরও ঝকঝকে।

আরও পড়ুন: ঘরোয়া পদ্ধতিতে ব্রণকে দূরে রাখুন এই ভাবে

ব্রণ থাকলে

ব্রণ কখনও খোঁটা বা হাত দেওয়া উচিত নয়, জানালেন অরিত্রবাবু। মুখের কোথাও ব্রণ বার হলে সঙ্গে সঙ্গে ‘স্পট কেয়ার’ শুরু করতে হবে। ড্রাই অ্যান্টিসেপটিক, ক্যালামাইন লোশন,  অ্যালোভেরা জেল লাগাতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে, কারণ করোনা আবহে সব রকম সংক্রমণ থেকে সাবধানে থাকতে হবে, এমনই জানালেন তিনি।