পথ-বিধি মনে করাতেই উদ্বোধনে মৃতদের পরিবার

দিগন্ত মান্না

০৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:২৩
শেষ আপডেট: ০৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১১:৩৫

বেদির নীচে পথ নিরাপত্তা সংক্রান্ত ছড়া লেখা।


মাস খানেক আগে কোলাঘাটের বাসিন্দা পেশায় শিক্ষক বছর তিরিশের উৎসব সামন্ত মেচেদায় বাইক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান। উৎসবের মাথায় হেলমেট ছিল না বলে জানা যায়। গত এক বছরে কোলাঘাট ব্লকের ১১ জন যুবক বাইক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান। যাঁদের সকলকেই বয়স তিরিশের মধ্যে। পথ নিরাপত্তার বার্তা দিতে পথ দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারের লোকজনদের দিয়েই পুজোর উদ্বোধন করল কোলাঘাটের সঙ্কেত সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি। যা এবার অভিনব বলে দাবি পুজোর উদ্যোক্তাদের। পথ নিরাপত্তা নিয়ে এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে পুলিশ-প্রশসানও।

কোলাঘাটের এই পুজোর থিম এ বার পথ নিরাপত্তা ও জল সংরক্ষণ। সারা বছর ধরে এই পুজো কমিটি এই দুটি বিষয় নিয়ে এলাকায় কাজ করলেও পুজোমণ্ডপে তার প্রতিফলন এই প্রথম। গত এক বছরে পথ দুর্ঘটনায় মৃত ১১ জন যুবকের স্মৃতির উদ্দেশ্যে মণ্ডপের সামনে তৈরি করা হয়েছে একটি সুদৃশ্য বেদি। বেদির নীচে পথ নিরাপত্তা সংক্রান্ত ছড়া লেখা। মণ্ডপের বাইরে ও ভেতরে পথ নিরাপত্তা নিয়ে সচেতনতার সচিত্র বার্তা তুলে ধরা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় পুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন পথ দুর্ঘটনায় মৃত ১১ জন যুবকের পরিবারের লোকজন। অনুষ্ঠানের শুরুতে মৃতদের স্মরণে নীরবতা পালন করা হয়। পরে বেদিতে ফুল শ্রদ্ধা জানান মৃতদের আত্মীয়-স্বজন। পরে আলোচনার আসরে স্বজন হারানোর বেদনার কথা তুলে ধরে নিরাপদে, সাবধানে পথ চলার বার্তা দেন। মৃতদের আত্মীয়দের হাতেই উদ্বোধন হয় পুজোর।

এ দিন পুজোর উদ্বোধনে এসেছিলেন মাসখানেক আগে বাইক দুর্ঘটনায় মৃত উৎসব সামন্তের বাবা প্রসেনজিৎ সামন্ত। তিনি বলেন, ‘‘ছেলেকে আর ফিরে পাব না। যাতে পথ দুর্ঘটনায় আর কোনও মায়ের কোল খালি না হয় দেবীর কাছে সেই প্রার্থনাই করি।’’ মমতা মাইতির ভাইপো অনিকেত মাইতিরও বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়। বছর দুয়েক আগে দুর্গাপুজোর অষ্টমীর দিন সেই দুর্ঘটনার কথা স্মরণ করিয়ে তিনি বলেন, ‘‘পথ নিরাপত্তা নিয়ে পুজো কমিটির এই উদ্যোগ বাঁচাতে পারে অনেক প্রাণ।’’

ষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত মণ্ডপের সামনে পথ নিরাপত্তা সংক্রান্ত ক্যুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন উদ্যোক্তারা। পুজো কমিটির সম্পাদক রবীন্দ্রনাথ দাস বলেন, ‘‘ প্রতি বছর পুজোয় পথ নিরাপত্তা নিয়ে কিছু না কিছু করি। তবে এবারের বিষয় ভাবনা অন্য বছরের একেবারেই আলাদা।’’

কোলাঘাটের ট্রাফিক অফিসার প্রদীপ মজুমদার বলেন, ‘‘সত্যিই অভিনব উদ্যোগ। পথ নিরাপত্তা নিয়ে সচেতনতায় প্রশাসনের পাশাপাশি পুজো কমিটিগুলিও এ ভাবে এগিয়ে এলে আমাদের কাজ অনেক সহজ হয়।’’