মুঠোফোন থাকলেও ল্যাপটপ দরকার

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৭:০৪
শেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৩:৫৭

মোটামুটি ৩০ হাজার টাকা থেকে ল্যাপটপ পেয়ে যাবেন।


দিনে দিনে প্রযুক্তি যত উন্নত হয়েছে, ইন্টারনেট সংযোগ যত ভাল হয়েছে, মানুষ কম্পিউটার-ল্যাপটপ ছেড়ে প্রায় দরকারি সব কাজ হাতের মধ্যে থাকা মুঠোফোনেই করে ফেলছে। অফিসের মেল হোক কি ক্যামেরায় তোলা ছবি শেয়ার, সিনেমা দেখা হোক কি ট্রেনের টিকিট বুক করা, হাতের মোবাইলে এখন সব সম্ভব। তাহলে খামোখা আবার অনেকগুলো টাকা খরচ করে একটা যন্ত্র কিনতে যাবেন কেন?

প্রথমত, এখন এই ধারণা রাখা ভুল যে ল্যাপটপ কম্পিউটার মানেই অনেক খরচ। মোটামুটি ৩০ হাজার টাকা থেকে শুরু ল্যাপটপে আপনি সাধারণ ওয়েব ব্রাউজিং থেকে টুকটাক এডিটিং অবধি করতে পারবেন! অবশ্যই চোখের পলকে আপনার সব কাজ করবে না এই দামের মধ্যে ল্যাপটপ, কিন্তু যা দাম সেই তুলনায় বর্তমানে আরও বেশি পরিমাণ কাজ করতে পারবেন।


দ্বিতীয়ত, অনেকেই মোবাইলের ছোট ডিসপ্লেতে ভিডিও-সিনেমা দেখা পছন্দ করেন না। তাঁদের জন্য ট্যাবলেট অথবা ল্যাপটপ, দুটোই বাজারে উপস্থিত। ট্যাবলেটের প্রধান অসুবিধে, তাতে ইউএসবি পোর্ট পাবেন না, ফলে পুজোয় কেনা ডিএসএলআর-এ তোলা ছবি ব্যাকআপ রাখতে পারবেন নাহার্ড ডিস্কে। একটা হার্ড ডিস্ক থেকে আর একটি হার্ড ডিস্কে কপি করা অথবা ল্যাপটপের হার্ড ডিস্কে সেভ করে রাখা কখনওই ট্যাবলেটে সম্ভব নয়। কারণ, সাধারণত একটি ল্যাপটপ ৫০০ জিবি স্টোরেজ থেকে শুরু হয়, আর ট্যাবলেট ১২৮ জিবি অবধি, কিছু ক্ষেত্রে ২৫৬ জিবি বা আরও বেশি হয়, কিন্তু তার দাম প্রচুর!

আরও পড়ুন: পুজোয় ফিট থাকার ফিটনেস ট্র্যাকার​

আরও পড়ুন: পুজোয় পেটপুজো এ বার অ্যাপনির্ভর টাচে​

তৃতীয়ত, যাঁরা গেম খেলেন। তবে,মাথায় রাখা দরকার গেম খেলার জন্য সাধারণত দামি কম্পিউটার বা ল্যাপটপের প্রয়োজন। মোবাইলের গেম ল্যাপটপে খেলা যায়, এরকম সফটওয়্যার এখন ফ্রি-তে পাওয়া যায়, যাকে বলে অ্যানড্রয়েড অ্যামুলেটর, ফলে যাঁদের ফোনেই গেম খেলা স্বভাব, তাঁরা আরও বড় ডিসপ্লে-তে কিবোর্ড-মাউস লাগিয়ে আরও ভাল ভাবে খেলতে পারবেন। আর যাঁদের অনলাইন বা একাধিক গেম খেলার স্বভাব, তাঁদের ল্যাপটপ-কম্পিউটার আবশ্যিক।

চতুর্থত, যাঁদের এক্সেল বা ওয়ার্ড-এর মতো অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে হয়, যাঁদের সেই তথ্য সিডি-ডিভিডি-তে আদানপ্রদান করতে হয়, তাঁদের জন্যও দরকার। ফোনে আজকাল উল্লিখিত অ্যাপ্লিকেশন পাওয়া গেলেও ৬ ইঞ্চির একটা স্ক্রিনে ছোট ছোট লেখা পড়ে বেশি সময় কাজ করা প্রায় অসম্ভব!

এছাড়াও ছবি এডিট থেকে ভিডিও, ডিজাইন থেকে টাইপিং,মোবাইলে করা প্রায় অসম্ভব!

আরও পড়ুন: সঙ্গে রাখুন পাওয়ার ব্যাঙ্ক, বন্ধুদের গ্রুপে হয়ে যান রকস্টার​

ফলে, এবার যদি ভেবে থাকেন ল্যাপটপ কিনবেন, দেরি না করে নজর রাখুন ই-কমার্স সাইটগুলিতে। পুজোর আগে একাধিক অফার, সহজ এক্সচেঞ্জ অফার পেয়ে যাবেন।

অনেকেই ভরসা করেন না অনলাইন কেনাকাটায়। তাঁদের জন্যও সুখবর, খবরের পাতায় খেয়াল রাখুন, দেখতে পাবেন একধিক বড় বড় ইলেকট্রনিক্সের দোকানগুলিতে টিভি-ফ্রিজ-ক্যামেরা ইত্যাদির সঙ্গে ল্যাপটপের ওপর ভালছাড় দিচ্ছে, সঙ্গে আবার হেডফোন, ইন্টারনেট ডংগল ইত্যাদি বিনামূল্যে বা লোভনীয় অফারে চলে আসে।

ফলে খেয়াল রাখুন, সুযোগের সদ্ব্যবহার করুন! সহজ ইনস্টলমেন্ট থেকে কোনও ডাউন পেমেন্ট না করেই কিনতে পারবেন নতুন ল্যাপটপ, অনলাইন হোক কিংবা আপনার পছন্দের দোকান! এখন এর সঙ্গে সহজে তিন বছরের ওয়ার‌্যান্টি বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ থাকে, ফলে আপনার দোষে হোক কিংবা অজান্তেই, খারাপ হলে সঙ্গে সঙ্গে নিয়ে যান সার্ভিস সেন্টারে, বিনামূল্যে অথবা নামমাত্র খরচে ঠিক করে নিতে পারবেনআপনার খারাপ হয়ে যাওয়া ল্যাপটপ!