মোবাইল বা কম্পিউটার গেমে জিততে চান? মেনে চলুন এগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদন

১৪ অক্টোবর, ২০১৮, ১৪:৪৪
শেষ আপডেট: ২২ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:৫২

ভাল ভাবে গেম খেলতে হলে খরচ করতেই হবে। আর একটু বুদ্ধি করে মোবাইল কিংবা কম্পিউটার বেছে নিতে হবে।


স্মার্টফোন আছে অথচ পাব-জি বা প্লেয়ারস আননোন ব্যাটেলগ্রাউন্ড খেলেন না, বা নাম শোনেননি, এরকম মানুষ খুব কম আছে। প্রথমে শুধুমাত্র কম্পিউটারে রিলিজ হওয়া এই গেম পরে যখন মোবাইলের জন্য বাজারে আসে, মোবাইল গেমের ছবিটাই এক ধাক্কায় বদলে যায়। দিনে দিনে ভাল ফোন আরও সহজলভ্য হয়ে উঠেছে, ফলে দারুন গ্রাফিক্স হোক কিংবা আকারে বড়– কোনও কিছুতেই স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের অসুবিধে নেই। যারা আবার কম্পিউটারে গেম খেলতে পছন্দ করেন, তাদের জন্যে প্রতি বছর কোম্পানির তরফে নতুন প্রসেসর, নতুন গ্রাফিক্স কার্ড বেরচ্ছে। ফলে, ভাল ভাবে গেম খেলতে হলে খরচ করতেই হবে। আর একটু বুদ্ধি করে মোবাইল কিংবা কম্পিউটার বেছে নিতে হবে।

কম্পিউটার
এখানে একটু বুদ্ধি করে আপনাকে বেছে নিতে হবে যন্ত্রাংশগুলি। আপনার বাজেট অনুযায়ী দামি, মাঝারি কম্পিউটার অ্যাসেম্বল করিয়ে নিতে পারেন, যাতে কিনা আপনি খুব ভাল ভাবে গেম খেলতে পারবেন। দু’রকম দামের কম্পিউটার যন্ত্রাংশের তালিকা দেওয়া হল।

নাম দামি কম দামি
প্রসেসর ইন্টেল আই৭ ৮৭০০কে ইন্টেল আই৫ ৮৪০০
মাদারবোর্ড আসুস ম্যাক্সিমাস টেন হিরো আসুস প্রাইম ৩১০
গ্রাফিক্স কার্ড জিটিএক্স ১০৭০ জিটিএক্স ১০৫০ টিআই
র‍্যাম ১৬ জিবি ডিডিআর ৪ ৮ জিবি ডিডিআর ৪

বাকি হার্ডডিস্ক, এসএসডি, দামি কিবোর্ড, মাউস অথবা প্রতি সেকেন্ডে ১৪৪টি ফ্রেম দেখানোর মতো দামি মনিটর- আপনার সুবিধা মতো আগে পরে কিনতে পারবেন। মোটামুটি দামি কম্পিউটারের দাম ১ লক্ষ মতো আর কম দামি কম্পিউটারের দাম ৬৫ হাজারের মতো হবে। ভাল করে গেম খেলতে গেলে যদি ফ্রেম ল্যাগ করে, অথবা গ্রাফিক্স ঠিক না থাকার দরুন দূর থেকে শত্রু চিনতে না পারার সমস্যা হয়, তা হলে আপনার জেতার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাওয়ার কথা। যে যন্ত্রাংশের কথা বলা হল, সেগুলি বাদ দিয়ে বাজারে আরও অনেক কোম্পানির যন্ত্রাংশ আছে। দেখে নেবেন, তার পারফরম্যান্স যেন এই তালিকার সঙ্গে মিলে যায়।

মোবাইল
যে ভাবে মোবাইলে গেম খেলার প্রচলন বাড়ছে, ফোন নির্মাতা থেকে গেম কোম্পানিগুলির কাছে এক সম্পূর্ণ নতুন বাজার তৈরি করছে। বড় স্ক্রিন, উন্নত গ্রাফিক্স, অতিরিক্ত ব্যবহারেও ফোন যাতে গরম না হয়, তার জন্য বিভিন্ন ব্যবস্থার শেষ নেই। এখানেও আমরা একটা ছোট তালিকা করে দিচ্ছি, কী দেখে আপনার ফোন কিনবেন গেম খেলার জন্যে।

আরও পড়ুন: জ়ি-জিয়ো চুক্তি পুজোয় বিনোদনের মাত্রা বাড়িয়ে তুলবে

নাম দামি কম দামি
প্রসেসর স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ (বা তার থেকে ভাল)
গ্রাফিক্স অ্যাড্রেনো ৬৩০ অ্যাড্রেনো ৫০৬
র‍্যাম ৮ জিবি ৪ জিবি

কম্পিউটারের মতো এখানেও বাকি ব্যাপারগুলি আপনার পছন্দ অনুযায়ী। ৫.৮ ইঞ্চি নাকি ৬.২ ইঞ্চির ডিসপ্লে, ৬৪ জিবি নাকি ২৫৬ জিবি স্টোরেজ, লিকুইড কুলিং নাকি নর্মাল, সবটাই আপনার বাজেট ও পছন্দের ওপর নির্ভর করছে। সাধারণত দামি ফোনের দাম ৪০ হাজার আর কম দামি ফোনের দাম ১৫ হাজারের মধ্যে হয়ে যাওয়ার কথা।

আরও পড়ুন: এয়ার পিউরিফায়ার কি দুর্গা পুজোতে কাউকে উপহার দেওয়া যায়?

তবে, দামি জিনিস কিনলেই যে সব গেম জিতে যাবেন, তা নয়। চিকেন খেতে হলে তার রান্নার পদ্ধতিটাও খুব প্রয়োজনীয়। একা অথবা বন্ধুদের সঙ্গে খেলছেন, ফোনের ইন্টারনেট নাকি ব্রডব্যান্ড, এরকম অনেক কিছুর ওপর আপনার জেতা হারা নির্ভর করছে। যারা সিঙ্গেল প্লেয়ার গেম খেলেন, তাদের এত কিছু ভাবার প্রয়োজন হয় না। কিন্তু যারা মাল্টিপ্লেয়ার গেম খেলছেন, আপনার বিপক্ষ একজন মানুষ এই শহরে বা দেশের অন্য কোনও প্রান্তে আপনারই মতো ফোন হাতে বা কম্পিউটারের সামনে বসে খেলছে, তখন প্রতিযোগিতার গুরুত্ব বারে অনেকটাই। মোবাইল বা কম্পিউটার যন্ত্র মাত্র, সবটাই নির্ভর করছে আপনার ওপর।

Community guidelines
Community guidelines