মাইক্রোওয়েভ এখন নিজে থেকেই করে দেবে রান্না

স্বপন দাস

২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১৩:০৫
শেষ আপডেট: ২১ অক্টোবর, ২০১৯, ১৩:২৪

সময় ও তাপের বিষয়টা আপনার মাইক্রোওয়েভ নিজে থেকে ঠিক করে নেবে।


রূপা বউদির বাড়িতে যে কোনও অতিথি এলে, তিনি গরম গরম কাবাব বা চিকেন রোস্ট পাবেনই। তাই নানা অজুহাতে অনেকেই আসেন তাঁর বাড়ি। কিন্তু কয়েক দিন ধরে সমস্যায় পড়েছেন রূপা বউদি। কারণ আর কিছুই নয়, তাঁর মাইক্রোওয়েভটা ঠিকমতো কাজ করছে না। তিনি অবশ্য কনভেক্সন মোডের একটা লেটেস্ট মডেল কিনেছিলেন। তবুও ঠিক মতো কাজ করছে না মাইক্রোওয়েভ। বেক করার জন্য টাইমার ফিট করে দিয়ে এলেও পুড়ে যাচ্ছে একটু বেশি।  নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। সকলকে খাওয়াবার ইচ্ছা তাই বাদ সাধছে। এই সমস্যা থেকে এ বার মুক্তি দিয়েছে প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি। এখন বেশ কিছু মাইক্রোওয়েভে আগে থেকে ঠিক করে রাখা আছে কোন বিষয়ের জন্য কতটা তাপ দরকার। খাবার গরম করা বা রান্না পুরোপুরি হয়ে গেলে নিজে থেকে বন্ধও হয়ে যাবে মেশিন। ফলে অতিরিক্ত গরমে পুড়ে যাওয়া বা কম গরমে আধা সেদ্ধ হওয়ার ভয় থেকে মুক্তি। আর সবচেয়ে বড় ব্যাপার, ম্যানুয়ালি কিছু সেট করে বারে বারে দেখতে হবে না।

গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর যেন একটু বেশি মাইক্রোওয়েভ কেনার দিকে ঝুঁকছেন মানুষ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখন হোম ডেলিভারি থেকে খাবার আনিয়ে নিচ্ছেন অনেকেই। শুধু সেটা সুস্থ ভাবে গরম করার একটা মাধ্যম চাই। তাই একটা মাইক্রোওয়েভ বাড়িতে থাকাটা জরুরি হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি বেশ কিছু সংস্থা মাইক্রোওয়েভে একটি বিশেষ কারিগরি বিষয় যোগ করেছে। সেখানে আগে থেকেই মেনুতে স্বয়ংক্রিয় ভাবে ফিট করা আছে, কোন জিনিসটি রান্না করতে কী রকম তাপের প্রয়োজন, আর কতক্ষণ তা ওভেনের ভিতর রাখতে হবে। বা কোন খাবার গরম করতে কতটা তাপের দরকার। ফলে সময় ও তাপের বিষয়টা ম্যানুয়ালি আর করতে হবে না। এখনকার তা আপনার মাইক্রোওয়েভ নিজে থেকে ঠিক করে নেবে। রান্না হয়ে গেলে নিজে থেকে বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে পুড়ে যাওয়ার কোনও ভয় থাকছে না।

আরও পড়ুন: পাওয়ার ব্যাঙ্ক কেনার সময় মাথায় রাখুন এ সব বিষয়

আরও পড়ুন: এক মাসের মধ্যেই ভারতে আসতে চলেছে রিয়েলমি এক্স-টু

 

আসুন কিছু বাজারে আসা নতুন মাইক্রোওয়েভের সঙ্গে পরিচয় করে নেওয়া যাক।

এলজি ৩২ এল MC3286BRUM:

যাঁদের একটু বড় পরিবার, তাঁরা এই কনভেক্সন মোডের মাইক্রোওয়েভ ওভেন নিতে পারেন। এই ওভেনটিতে ২১১টি ভারতীয় রান্নার জন্য অটো কুক মেনু অপশন আছে। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, সিঙ্গারা বা পকোড়াও ভাজতে পারবেন এতে। বেকিং, গ্রিলিং, রিহিটিং, ডিফ্রস্টিং তো করা যাবেই।

আইএফবি ২০ লিটার 20SC2

এই ব্র্যান্ডটিকে বিশ্বের অন্যতম সেরা বলা হয়। একটু ছোট পরিবার যাঁদের, তাঁরা এটির দিকে ঝুঁকতে পারেন। এটির ভাল গুণের মধ্যে রয়েছে ডিফ্রস্টের বিষয়টা। ফ্রিজ থেকে বের করা খাবারকে চটপট স্বাভাবিক ভাবে আপনার পাতে পৌঁছে দেবে। এর মেমরিতে থাকা তিন ধরনের রান্নার চক্রটি খাদ্যের গুণমান বজায় রেখে রান্না করতে সাহায্য করবে স্বয়ংক্রিয় ভাবে।

স্যামসাং ২৮ লিটার CE1041DSB2/TL

যাঁরা একটু পেশাদারিত্বের দিকটা পছন্দ করেন, তাঁদের কাছে এই কনভেক্সন মাইক্রোওয়েভটি ভাল লাগবে। এই মাইক্রোওয়েভে আছে তন্দুর টেকনোলজি। ফলে আপনার রান্নাঘরে এই মাইক্রোওয়েভ থাকলে, আপনি আপনার রান্নাঘরকে অবলীলায় বলতে পারবেন, তন্দুর কিচেন। রুটি, নান, পরোটা তৈরির কথা না হয় আলাদা করে না-ই বা বলা গেল।