সাধ্যের মধ্যে ওয়ান প্লাস, সাধ মেটাবেন নাকি?

অলোক ভট্টাচার্য

০৯ অক্টোবর, ২০২০, ১৮:৩০
শেষ আপডেট: ০৯ অক্টোবর, ২০২০, ১৮:১৩

র‌্যামের ওপরে ভিত্তি করে এই ফোনে বেশ কয়েকটি সংস্করণ রয়েছে।


আগের রাত থেকেই দোকানের সামনে হাজিরা। রাত যত বাড়ে, তত দীর্ঘ হয় লাইন। কেউ কেউ তো দিন কয়েক আগে থেকেই তাঁবু গেঁড়ে বসে। কারণ, সকাল হলেই নতুন আইফোনটি হস্তগত করতে হবে। না হলে যেন জীবন বৃথা! নিন্দুকে বলে, সেই উন্মাদনা এখন কিছুটা স্তিমিত। তবে অন্য একটি সংস্থার ফোন ঘিরে গত কয়েক বছরে এই উন্মাদনার ছায়া কিছুটা দেখা গিয়েছে। নিশ্চিত ভাবে ধারে-ভারে তা আইফোনের কাছাকাছি নয়। কিন্তু উন্মাদনা যে আছে, তা অস্বীকারও করা যায় না।

ব্র্যান্ডের নাম ওয়ান প্লাস। ফোনের গুণে জনমানসে যা এখন আলাদা করে জায়গা করে নিয়েছে। তবে একটি বিষয়ে আমজনতার থেকে একটু দূরেই থাকছিল এই ব্র্যান্ডের ফোন। তা হল দাম- যার জেরে এত দিন ঠিক মধ্যবিত্তের নাগালে আসত না। আইফোন যেমন আইফোন-এসির মাধ্যমে মধ্যবিত্তের আয়ত্তের মধ্যে তাদের ফোন আনার চেষ্টা শুরু করেছে, এ বার সেই একই পথে পা বাড়াল ওয়ান প্লাসও। মধ্যবিত্তের সাধ ও সাধ্য মিলিয়ে দিতে সম্প্রতি একটি নতুন ফোন বাজারে এনেছে তার। নাম ওয়ান প্লাস নর্ড। তবে দামে কম হলেও গুণমানে কোনও খামতি নেই বলেই দাবি সংস্থার।

আরও পড়ুন:  হ্যান্ড মিক্সার কিনুন মেটাল বডির হালকা ওজনের

ঠিক কেমন ফোন ওয়ান প্লাস নর্ড? 

শুরু করা যাক ফোনের গঠন দিয়ে। আয়তনে ১৫৮.৩ মিলিমিটার x ৭৩.৩ মিলিমিটার x ৮.২ মিলিমিটার ফোনটির ওজন ১৮৪ গ্রামের মতো বলে জানিয়েছে সংস্থা। ৬.৪৪ ইঞ্চির ডিসপ্লে স্ক্রিনের রেজলিউশন ১০৮০ x ২৪০০ পিক্সেল এবং ৪০৯ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটি রয়েছে ফোনটিতে।  রয়েছে ফ্লুয়িড-আমোলেড ডিসপ্লে। এর অ্যাসপেক্ট রেশিও ০.৮৩৯৫৮ এবং স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও ০.৮৬২৯। 

এ বার আসা যাক ফোনের প্রাণভোমরার কথায়। ফোন কেমন চলবে, কার্যক্ষমতা কতটা- তার উত্তর লুকিয়ে আছে ফোনের প্রসেসর আর র‌্যামের ভিতরে।  এই ফোনে কোয়ালকম-এর স্ন্যাপড্রাগন ৭৬৫জি চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। আর এতে আছে ক্রায়ো ৪৭৫ অক্টাকোর প্রসেসর। তার মধ্যে একটি ২.৪ গিগাহার্জ়ের, একটি ২.২ গিগাহার্জ়ের, আর বাকি ছ'টি ১.৮ গিগাহার্জ়ের কোর।  র‌্যামের ওপরে ভিত্তি করে এই ফোনে বেশ কয়েকটি সংস্করণ রয়েছে। একটি ৬ জিবি র‌্যামের। তার সঙ্গে ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি থাকছে। ৮ জিবি র‌্যামের সংস্করণে থাকছে ১২৮ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি। আর একটি ফোন ১২ জিবি র‌্যামের। এর সঙ্গে ২৫৬ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি। 

এ বার বলি ফোনটির ক্যামেরা সম্পর্কে। ফোনের পিছন দিকে চারটি ক্যামেরা রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান ক্যামেরাটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের। একটি ক্যামেরা আট মেগাপিক্সেলের, যা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল দেবে। আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেলের ক্যামোরাটি ৫ মেগাপিক্সেলের।  আর ডেপথ ক্যামেরাটি ২ মেগাপিক্সেলের।  এতে ডিজিটাল জ়ুম, অটো ফ্ল্যাশ, ফেস ডিটেক্টশন, টাচ্-টু ফোকাসের মতো সুবিধা রয়েছে। আর ফোন সংযোগের মাধ্যম হিসেবে ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ, জিপিএস, ভোল্টা ও এনএফএস সুবিধা তো আছেই। আর সব কিছু মিলিয়ে ফোনটি চলবে ৪১১৫ এমএএইচ ব্যাটারির উপরে নির্ভর করে।

আরও পড়ুন:  ভার্চুয়াল লার্নিং বা ওয়ার্ক ফ্রম হোম, সঙ্গী হোক ওয়্যারলেস হেডফোন​

উৎসব প্রায় এসে গেল। এই শারদীয়ায় পকেটে নতুন ওয়ান প্লাস থাকলে মন্দ কাটবে না বলে মনে হয়। ওহ, বলাই হয়নি!  ওয়ান প্লাস নর্ড কিন্তু ৫জি ফোন। আর এটি চলবে অ্যানড্রয়েড-১০ এর উপরে ভিত্তি করে তৈরি ওয়ান প্লাসের নিজস্ব অক্সিজেন ওস-১০-এ।