‘নিউ নর্মাল’ উৎসবের সঙ্গী ল্যাপটপ, কেনার সময় কী কী খেয়াল রাখবেন

স্বপন দাস

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৭:২৯
শেষ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৭:৪১

ল্যাপটপ কেনার সময় কী কী বিষয় মাথায় রাখবেন রইল তারই হদিস।


জীবনযাপন অনেকটা পাল্টে গিয়েছে কয়েক মাসে। জীবন এখন ‘নিউ নর্ম্যাল’। অফিসের ক্ষেত্রেও পরিবর্তনও ঘটেছে। শিক্ষাক্ষেত্রের পাঠ দানের চিরাচরিত ধারাও বদল হচ্ছে ধীরে ধীরে। পুরোটাই ভার্চুয়াল। শিক্ষাও এখন ফোন বা ইন্টারনেট নির্ভর।

‘ই-লার্নিং’ অথবা ‘ভার্চুয়াল লার্নিং’ এখন চেনা শব্দ। দুধের শিশুও পাঠ নিচ্ছে বা স্কুলের ক্লাস করছে, কম্পিউটার বা মোবাইলের সামনে বসে। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে মানিয়ে নিচ্ছে খুদেরাও। অফিসও এখন ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’। বাড়িতে বসেই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সামলে নিতে হচ্ছে সব কাজ।

অনেকেই ভাবছেন, এ বার পুজোয় একটা ল্যাপটপ কিনলে কেমন হয়? সেই মতো খোঁজ নিতেও শুরু করেছেন কেউ কেউ। সাধারণ মধ্যবিত্ত ল্যাপটপ কেনার বিষয়ে বেশি আগ্রহী, জানাচ্ছেন শহরের বিক্রেতারা। তাঁরা বলছেন, মোটামুটি ৪০ হাজারের ঊর্ধসীমা রাখছেন ক্রেতারা। সেই বাজেটের মধ্যেই ‘ভার্চুয়াল লার্নিং’ ও ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’, এই দু’টি বিষয়কে সামলে নেওয়ার মতো ল্যাপটপ চাইছেন।

আরও পড়ুন: ইন্টারনেটের ফাইভ-জি খুলে দেবে নতুন দুনিয়া

প্রাথমিক ভাবে কী কী খেয়াল রাখতে হবে ল্যাপটপ কেনার সময়?

  •  ল্যাপটপের ডিসপ্লে স্ক্রিন দেখে নিতে হবে। এটা কমপক্ষে যেন ১২ থেকে ১৪ ইঞ্চির মধ্যে হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই মাপের স্ক্রিন সবার জন্যই ঠিক।
  •   যদি সাধারণ কাজের জন্য বেশি ব্যবহার করা হয়, তাহলে ৮ জিবি র‌্যাম যথেষ্ট। তবে হার্ড ড্রাইভের জায়গায় এসএসডি (solid state drive) রয়েছে এমন ল্যাপটপ নিতে বলছেন বিশারদরা, ফলে ল্যাপটপ খুব ভাল চলবে, স্টোরেজের সমস্যা হবে না। তাঁরা চান, সিপিইউ যেন i5 প্রসেসর সমেত হয়।আর স্ক্রিন ডিসপ্লে যেন ফুল এইচডি– ১৯২০X১০৮০ হয়। এর থেকে বেশি নিলে ব্যাটারি খরচ বেশি হবে।

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে মানিয়ে নিচ্ছে খুদেরাও।

  •  ব্যাটারি কমপক্ষে যেন ৮ ঘণ্টার বেশি চলে, সেটা দেখে নিতে হবে। যেখানে–সেখানে নিয়ে কাজ বা ক্লাস করার ক্ষেত্রে যাতে আচমকা পাওয়ারের কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়ার ভয় না থাকে। ব্যাটারি লাইফ খুব জরুরি বিষয়, এটা মনে রাখতে হবে।
  •  কোনও কোনও ল্যাপটপের ক্ষেত্রে আপনার ডিসপ্লে-টা আলাদা করতে পারবেন। কোনও ক্ষেত্রে ইচ্ছামতো ডিসপ্লে ওঠা-নামা করা যায়, পিছনেও ‘বেন্ড’ করতে পারবেন। এই ধরনের ল্যাপটপে অনেক ক্ষেত্রে থাকে টাচ স্ক্রিন সুবিধা।  ট্যাবলেট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে এ রকম সুবিধা যদি চান, তাহলে সেরকমই খোঁজ করবেন।
  •  অনেকে মনে করছেন Windows 10 ব্যবহার করা যাবে এরকম ল্যাপটপ কেনাই ভাল। তবে ম্যাকবুকের বিষয় এ ক্ষেত্রে  এড়িয়ে গেলে ভুল করা হবে। সে ক্ষেত্রে একটু বেশি করে বাজেট ভেবে এগোতে হবে।
  •  ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রটাও ভাল করে বুঝে নেবেন। ল্যাপটপে যেন সহজেই ওয়াই-ফাই সংযোগ থাকে। এ বিষয়ে কোনও অবহেলা করলে চলবে না। ‘ভার্চুয়াল লার্নিং’ বা ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’-এ ইন্টারনেট সংযোগ না থাকলে কোনও কাজ হবে না।
  •  কি-বোর্ডটি সহজে ব্যবহার করা যাচ্ছে কিনা দেখাটা জরুরি।
  • ল্যাপটপের ওজন যেন কম হয়। তাহলে বহন করার বিষয়ে একটু হলেও সুবিধা পাবেন।
  • কোন ল্যাপটপ ব্র্যান্ডের আফটার সেলস সার্ভিস ভাল, আর সেই সার্ভিস সেন্টার বাড়ির কাছাকাছি রয়েছে কি না, সেটা দেখে নেবেন।
  •  যে ল্যাপটপ সহজে ব্যবহারযোগ্য ও সব শর্ত মোটামুটি পূরণ করেছে, সেগুলি ব্যবহার করতে হবে।

ল্যাপটপটি কাজের প্রয়োজনে কিনছেন। তাই নেটে গিয়ে সার্চ করে দেখে নেবেন, কোন ল্যাপটপের মধ্যে এই সুবিধাগুলি আছে।

এখন বেশ কয়েকটি ল্যাপটপ ব্র্যান্ড বাজারে বেশ পরিচিত। যেমন, ডেল, লেনোভো, এইচপি, আসুস, এসার প্রভৃতি। তবে বাকিগুলিও হেলাফেলার নয়। আর ম্যাকবুকের কথা বলতেই হবে।

আরও পড়ুন: পুরনো টিভি এ বার স্মার্ট, লাগবে শুধু একটা স্টিক!

এ বার বাজেট প্রসঙ্গে আসা যাক,  যদি ৪০ হাজারের মধ্যে বাজেট হয়, তাহলে সব সুবিধাই পাবেন কিন্তু এসএসডি এবংi5 প্রসেসর না-ও পেতে পারেন, ৫০ হাজারের উপরে উঠলে এসএসডি’ র সুবিধা পাবেন। যত বাজেট বাড়াবেন, সুবিধা ততই বেশি। একেবারে টেনথ জেনারেশন পর্যন্ত ল্যাপটপ পেতে পারবেন।